ব্রাজিলিয়ানদের ম্যাচে এক ব্রাজিলিয়ানই জেতালেন রিয়ালকে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

ব্রাজিলিয়ানদের ম্যাচে এক ব্রাজিলিয়ানই জেতালেন রিয়ালকে

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

ব্রাজিলিয়ানদের ম্যাচে এক ব্রাজিলিয়ানই জেতালেন রিয়ালকে

বর্তমান রিয়াল মাদ্রিদ দলে ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় ৫ জন। মার্সেলো, কাসেমিরো, এদের মিলিতাও ও রদ্রিগোকে শুরুর একাদশেই নামিয়ে ছিলেন কোচ জিনেদিন জিদান। বাকিজন ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে বদলি হিসেবে নামিয়েছেন ৬১ মিনিটে। কাল সেভিয়ার বিপক্ষে রিয়ালের ম্যাচটা তাই এক অর্থে ব্রাজিলিয়ানদের ম্যাচই হয়ে উঠেছিল। তো ব্রাজিলিয়ানদের এই ম্যাচে রিয়ালকে জিতিয়েছেনও একজন ব্রাজিলিয়ানই। ডিফেন্সিফ মিডফিল্ডার কাসেমিরোর জোড়া গোলে কদিন আগে সুপার কাপের শিরোপা জেতা রিয়াল পেয়েছে ২-১ ব্যবধানের জয়।

সেভিয়ার বিপক্ষে নিজেদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর এই ম্যাচটাতে ছোটখাট একটা জুয়াই খেলেছিলেন রিয়াল কোচ জিদান। চোট থেকে সেরে উঠার পর করিম বেনজেমাকে বদলি তালিকায় রেখেছিলেন কোচ জিনেদিন জিদান। গ্যারেথ বেলকে স্কোয়াডেই রাখেননি। তাদের পরিবর্তে জিদান কাল আক্রমণ সাজান লুকা জভিচ, রদ্রিগো ও লুকাস ভাজকুয়েসকে দিয়ে।

কিন্তু এই তিনজনেই গোল করতে ব্যর্থ। গোল পাননি দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নামা বেনজেমা এবং ভিনিসিয়াস জুনিয়রও। তারপরও রিয়াল জয় পেয়েছে কাসেমিরোর কাঁধে চেপে। ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হয়েও রিয়ালের দুটো গোলই করেছেন এই ব্রাজিলিয়ান।

অবশ্য জয়ের আগে রিয়ালের নাকে-মুখের পানি এক করে ছেড়েছে সেভিয়া। আরও একটু স্পষ্ট করে বললে, রিয়ালের কালকের জয়টা ভাগ্য প্রসূত। প্রতিপক্ষ সেভিয়ার একটা ভিএআরের সহায়তায় বাতিল হয়েছে। রেফারির যে সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। কেউ বলছেন, রেফারি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কেউ বলছেন রেফারি ভুল সিদ্ধান্তে গোলটি বাতিল করেছেন। শুধু এই গোলই বাতিল নয়, ম্যাচের প্রথম ৫৭ মিনিট পর্যন্ত সফরকারী সেভিয়াই রাজত্ব করেছে মাঠে। মানে মাঠের লড়াইয়ে সফরকারী সেভিয়াই ছিল শ্রেয়তর দল। জিদানের রিয়াল জিতেছে সৌভাগ্যের সহায়তায়।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে রিয়ালের কোচ পদ থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর কালই প্রথম বারের মতো বার্নাব্যুতে গিয়েছিলেন জুলিয়েন লোপেতেগুই। তাই তার হয়তো আশা ছিল রিয়ালকে তাদের মাঠেই একটা উচিত শিক্ষা দেওয়ার। লোপেতেগুইয়ের শিষ্যরা কোচের নির্দেশনা পালনে খেলেছেও দুর্দান্ত। বার্নাব্যুতে শুরুর বাঁশি বাজার পর থেকেই রিয়ালের উপর দাপট দেখাতে শুরু করে  লোপেতেগুইয়ের সেভিয়া।

৩০ মিনিটে গোলের দেখাও পায় সেভিয়া। কিন্তু লুক ডি ইয়াংয়ের গোলটি ভিএআরের সহায়তায় বাতিল করেছেন রেফারি। ভিডিও দেখে রেফারি নিশ্চিত হন, গোলটি করার আগে বল লুক ডি ইয়াংয়ের হাতে লেগেছিল। মানে হ্যান্ডবল। যদিও ওই হ্যান্ডবল নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। একেকজন বলছেন একেক কথা।

রেফারির সিদ্ধান্ত সঠিক হোক বা ভুল, গোলটি বাতিল হওয়ায় হাফ ছেড়ে বাঁচে রিয়াল। শেষ পর্যন্ত তা রিয়ালকে জয়ও এনে দিয়েছে। ওই গোলটি বাতিল হলে ম্যাচের ফলটা অন্য রকমই হতে পারত। তবে ওই গোল বাতিলের আফসোসের পরও মাঠে দাপট অব্যাহত রাখে সেভিয়া।

৫৭ মিনিট পর্যন্ত তাদের সেই দাপট চলে। কিন্তু খেলার ধাচের বিপরীতে ৫৮ মিনিটে গোল পেয়ে যায় রিয়াল। লুকা জভিচের পাশ থেকে বা পায়ের জোরালো শটে দলকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন কাসেমিরো।

কিন্তু তার এই গোলটি ৬৩ মিনিটেই শোধ করে দেয় সেভিয়া। সফরকারীদের সমতায় ফেরান সেই লুক ডি ইয়াংই। যার প্রথম গোলটি বাতিল হয়েছে। কিন্তু সেভিয়ার এই সমতায় ফেরাটা ভালো লঅগেনি কাসেমিরোর। ৬৯ মিনিটে তাই ব্রাজিলিয়ান তারকা আবারও এগিয়ে দেন রিয়ালকে। কাসেমিরো এবারের গোলটি করেন দুর্দান্ত এক হেডে। শেষ পর্যন্ত সেই গোলটিই রিয়ালকে এনে দিয়েছে জয়। পাইয়ে দিয়েছে মহামূল্যবান ৩টি পয়েন্ট।

যে ৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে গেছে রিয়াল। প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার চেয়ে এখন পূর্ণ ৩ পয়েন্টে এগিয়ে তারা। তবে আজ গ্রানাডার বিপক্ষে ম্যাচ আছে বার্সেলোনার। নিজেদের ঘরের মাঠ ন্যু-ক্যাম্পের এই ম্যাচে জিতলেই আবার শীর্ষে উঠে যাবে বার্সা।

তবে তার আগ পর্যন্ত ২০ ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট ৪৩। ১৯ ম্যাচে বার্সেলোনার পয়েন্ট ৪০। সমান ২০ ম্যাচে অ্যাতলেতিকো ও সেভিয়া, এই দুই দলের পয়েন্ট সেই ৩৫ করেই। কারণ, কাল সেভিয়ার পাশাপাশি হেরেছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদও। দৈত্য অ্যাতলেতিকোকে ২-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে পুঁচকে এইবার।

কেআর

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও