লিভারপুলের ৫, বার্সার ২, রিয়ালের ১ জনও নয়

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

লিভারপুলের ৫, বার্সার ২, রিয়ালের ১ জনও নয়

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২০

লিভারপুলের ৫, বার্সার ২, রিয়ালের ১ জনও নয়

গত এক দশকে ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলে একচ্ছত্র রাজত্ব করেছে দুই স্পানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা। বছর শেষে উয়েফার বর্ষসেরা একাদশেও তার প্রতিফলন ঘটেছে। রিয়াল এবং বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরাই বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পেয়েছে বেশি। কিন্তু এবারের চিত্রটা পুরো উল্টো। রিয়াল-বার্সা মিলে ২০১৯ সালের উয়েফার বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পেয়েছেন মাত্র দুজন!

বিস্ময়ের শেষ নয় এখানেই। উয়েফার বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পাওয়া সেই দুজনই বার্সেলোনার। রিয়ালের একজনও নয়। ২০০৯ সালের পর এই প্রথম উয়েফার বর্ষসেরা একাদশে রিয়ালের কোনো খেলোয়াড় নেই।

বার্সেলোনার দুজনের হিসেবেও অবশ্য বড় একটা কিন্তু আছে। বার্সেলোনা থেকে জায়গা পেয়েছেন লিওনেল মেসি ও দলের নতুন সদস্য ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং। এর মধ্যে ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং গত মৌসুমে খেলেছেন স্বদেশি ক্লাব আয়াক্সের হয়ে। বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছেন এই মৌসুমে।

ডাচ ক্লাব আয়াক্সের হয়েই গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মাতিয়েছেন তিনি। মানে আয়াক্সের হয়ে দূরন্ত পারফরম্যান্সের সুবাদেই ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং জায়গা পেয়েছেন সেরা একাদশে। সেই হিসেবে পুরো বছর বার্সেলোনার হয়ে খেলা খেলোয়াড়দের মধ্যে বর্ষসেরা একাদশে স্থান পেয়েছেন মাত্র ১ জন, মেসি।

ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের অবস্থাও ঠিক বার্সেলোনার মতো। জুভেন্টাসেরও দুজন খেলোয়াড় স্থান পেয়েছেন সেরা একাদশে। তার মধ্যে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোই শুধু জুভেন্টাসের জার্সি পরে পুরো বছর খেলেছেন। অন্যজন, মাতিয়াস ডি লিঁখত বন্ধু ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াংয়ের মতোই গত মৌসুমটি খেলেছেন স্বদেশি ক্লাব আয়াক্সের হয়ে। আয়াক্সের হয়ে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবেই তরুণ এই ডাচ ডিফেন্ডার জায়গা পেয়েছেন সেরা একাদশে।

রিয়াল-বার্সার হতাশার বছরটিতে উয়েফার বর্ষসেরা একাদশে জয়জয়কার চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের। রিয়াল-বার্সার রাজত্বে হানা দিয়ে গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিতেছে লিভারপুল। তারই স্বীকৃতি হিসেবে লিভারপুলের ৫ জন স্থান পেয়েছেন বর্ষসেরা একাদশে। তারা হলেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক আলিসন বেকার, ডাচ ডিফেন্ডার ভিরগিল ফন ডিক, ইংলিশ ডিফেন্ডার ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড, অ্যান্ডি রবার্টসন ও সেনেগালিজ উইঙ্গার সাদিও মানে।

এবারের একাদশে বড় বিস্ময় আছে আরও একটি। রানার্সআপ টটেনহাম থেকে একজনও জায়গা পাননি। উপরে উল্লেখিত ৯ জনের সঙ্গে জায়গা পাওয়া বাকি দুজন হলেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ ফরোয়ার্ড রবার্ট লেভান্ডভস্কি ও ম্যানচেস্টার সিটির বেলজিয়ান মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইন।

রিয়াল-টটেনহামের কেউ স্থান না পাওয়াটা বিস্ময়ের বটে। তবে বেছে নেওয়া সেরা একাদশ নিয়ে কারো প্রশ্ন থাকার কথা নয়। বরং পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে অসাধারণ একটা একাদশই বেছে নিয়েছে উয়েফা। নিচের একাদশটিতে আরেক চোখ রাখলেই বিষয়টি স্পষ্ট হবে।

২০১৯ সালের উয়েফা বর্ষসেরা একাদশ :

গোলরক্ষক : আলিসন বেকার (লিভারপুল)

ডিফেন্ডার : ভিরগিল ফন ডিক (লিভারপুল), অ্যান্ডি রবার্টসন (লিভারপুল), ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড (লিভারপুল) ও মাতিয়াস ডি লিঁখত (আয়াক্স/জুভেন্টাস)।

মিডফিল্ডার : কেভিন ডি ব্রুইন (ম্যানচেস্টার সিটি) ও ঢ্রেঙ্কি ডি ইয়াং (আয়াক্স/বার্সেলোনা)।

ফরোয়ার্ড : লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা), ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো (জুভেন্টাস),  রবার্ট লেভান্ডভস্কি (বায়ার্ন মিউনিখ) ও সাদিও মানে (লিভারপুল)।

কেআর

আক্রমণে লেভান্ডভস্কি, রোনালদো, মেসি ও সাদিও মানে। মিডফিল্ডে কেভিন ডি ব্রুইন ও ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং। রক্ষণে ভিরগিল ফন ডিক, ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড, অ্যান্ডি রবার্টসন ও মাতিয়াস ডি লিঁখত। গোলপোস্টে অত্যন্ত্র প্রহরী আলিসন।

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও