টাকার লিগে রিয়ালকে হারিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬

টাকার লিগে রিয়ালকে হারিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৫৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২০

টাকার লিগে রিয়ালকে হারিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা

কোচ পরিবর্তন নিয়ে গত একটি সপ্তাহে অস্থির সময় পাড় করেছে বার্সেলোনা। সেই অস্থিরতার অবসানও হয়েছে। শেষ পর্যন্ত পুরোনো কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দেকে ছাটাই করে বার্সেলোনা নতুন কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে কিকে সেতিয়েনকে। নতুন কোচ নিয়োগ দিলেও কোচ পরিবর্তন নিয়ে বার্সার অন্দরমহলের গোমট ভাবটা এখনো পুরোপুরি কাটেনি। এই অবস্থার মধ্যেই অন্য রকম এক সুখবর কাতালন শিবিরে। টাকার লিগে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে শীর্ষে উঠেছে বার্সেলোনা।

মানে বিশ্বের সমস্ত ফুটবল ক্লাবগুলোর মধ্যে গত মৌসুমটিতে সবচেয়ে বেশি আয় করেছে বার্সেলোনা। সম্প্রতি ডেলোত্তে ফুটবল মানি লিগ’ কর্তৃক ঘোষিত বার্সেলোনার আয়ের অঙ্কটাও কপাল উঠার মতোই। গত মৌসুমটিতে তাদের আয় ৮৪০.৮ মিলিয়ন ইউরো। যা আগের মৌসুমের তুলনায় ২১.৭ শতাংশ বেশি।

আগের মৌসুমটিতে এই টাকার লিগে শীর্ষে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এবার তারা নেমে গেছে দুয়ে। এবার তাদের আয় ৭৫৭.৩ মিলিয়ন ইউরো। মানে বার্সেলোনার আয় রিয়ালের চেয়ে ৮৩.৫ মিলিয়ন ইউরো বেশি।

বার্সেলোনার দাপটে রিয়াল দুয়ে নেমে গেছে বটে; তারপরও আগের মৌসুমের তুলনায় গত মৌসুমে রিয়ালের আয় ০.৯ শতাংশ বেড়েছে। অর্থাৎ আগের মৌসুমে রিয়ালের আয় ছিল ৭৫০.৯ মিলিয়ন ইউরো।

আগের মৌসুমে বার্সেলোনার আয় ছিল ৬৯০.৪ মিলিয়ন ইউরো। জায়গা হয়েছিল ৩ নম্বরে। এবার এক লাফে তাদের আয় বেড়েছে ১৫০.৪ মিলিয়ন ইউরো! ভাবা যায়!

আগের মৌসুমে তালিকার দুই নম্বরে ছিল ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। বার্সেলোনার অবিশ্বাস্য উত্থানে এবার তাদের জায়গা হয়েছে ৩ নম্বরে। তারপরও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডেরও আয় আগের মৌসুমের তুলনায় বেড়েছে। ৬৬৫.৮ মিলিয়ন ইউরো থেকে বেড়ে গত মৌসুমে তাদের আয় ৭১১.৫ মিলিয়ন ইউরো।

আয়ের এই তালিকায় শীর্ষ পাঁচে জায়গা পাওয়া অন্য দুই ক্লাব হলো বায়ার্ন মিউনিখ ও পিএসজি। জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের আয় ৬৬০.১ মিলিয়ন ইউরো। ৫ নম্বরে থাকা নেইমার-এমবাপে-কাভানিদের দল পিএসজির আয় ৬৩৫.৯ মিলিয়ন ইউরো। তালিকায় এরপর পর্যায়ক্রমে রয়েছে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি (৬১০.৬ মিলিয়ন), লিভারপুল (৬০৪.৭ মিলিয়ন), টটেনহাম (৫২১.১ মিলিয়ন), চেলসি (৫১৩.১ মিলিয়ন) এবং ১০ নম্বরে জায়গা পাওয়া ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের আয় ৪৫৯.৭ মিলিয়ন ইউরো।

এছাড়া ৪৪৫.৬ মিলিয়ন ইউরো আয় নিয়ে তালিকার ১১ নম্বরে আরেক ইংলিশ ক্লাব আর্সেনাল। ১২ নম্বরে জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ড, যাদের আয় ৩৭৭.১ মিলিয়ন ইউরো। ৩৬৭.৬ মিলিয়ন ইউরো নিয়ে ১৩ নম্বরে স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।

টাকার লিগের শীর্ষ দুটি ক্লাবই স্পেনের। তবে শীর্ষ ১৩ বিবেচনায় নিলে ‘ডেলোত্তে ফুটবল মানি লিগে’ রাজত্ব ইংলিশ ক্লাবগুলোর। সর্বোচ্চ আয়কারী ১৩ ক্লাবের মধ্যে ৬টি ক্লাবই ইংল্যান্ডের। এছাড়া স্পেনের ৩টি, জার্মানির ২টি এবং ইতালি ও ফ্রান্সের একটি করে ক্লাব জায়গা পেয়েছে শীর্ষ ১৩-তে। তবে তালিকায় অবস্থান যেখানেই হোক, শীর্ষ ১৩-র প্রতিটা ক্লাবেরই আগের মৌসুমের তুলনায় আয় বেড়েছে।

কেআর/

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও