পিএসজির ৫ গোলদাতার মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল নেইমার

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০ | ১৪ মাঘ ১৪২৬

পিএসজির ৫ গোলদাতার মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল নেইমার

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

পিএসজির ৫ গোলদাতার মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল নেইমার

মাউরো ইকার্দি, পাবলো সারাবিয়া, নেইমার, কিলিয়ান এমবাপে, এডিনসন কাভানি। ৫ জনই পিএসজির আক্রমণভাগের খেলোয়াড়। কাল পিএসজির এই ৫ তারকাই গোল করলেন এক যুগে। ম্যাচের ফলটাও এই তথ্যেই উদ্ভাসিত! উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচটিতে ফরাসি ক্লাবটি গালাতাসারাইকে ভাসিয়েছে ৫-০ গোলে।

৫ জনেই একটি করে গোল করেছেন্। এই তথ্যে পিএসজির কালকের জয়ের নায়ক ৫ জনই। তবে এই ৫ নায়কের মধ্যেও সবচেয়ে বেশি উজ্জ্বল নেইমার। ব্রাজিল তারকা এই ম্যাচেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মৌসুমে নিজের প্রথম গোলটি করলেন। গোলের খাতা খোলার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়েও করিয়েছেন দুটি গোল। মানে নেইমার নিজে এক গোল করেছেন, সঙ্গে দুটি অ্যাসিস্ট করেছেন।

নিজে এক গোল এবং দুটি অ্যাসিস্ট করেছেন কিলিয়ান এমবাপেও। গালাতাসারাইকে গোল বন্যায় ভাসাতে এই অর্থে তাই নেইমার-এমবাপে সমানে সমান। তবে মাঠের পারফরম্যান্স বিচারে নেইমারই মূল নায়ক। ম্যাচসেরার পুরস্কারটিও পেয়েছেন তিনিই।

পিএসজির নকআউটপর্ব নিশ্চিত হয়েছিল দুই ম্যাচ আগেই। এক ম্যাচ নিশ্চিত হয়ে যায় গ্রুপ চাম্পিয়ন হওয়াও। ফলে কালকের গ্রুপপর্বের ম্যাচটি পিএসজির জন্য ছিল স্রেফ আনুষ্ঠানিকতার। চাইলে অগুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে দ্বিতীয় সারির দলই নামাতে পারতেন পিএসজি কোচ। বাজিয়ে নিতে পারতেন বেঞ্চ তারকাদের। যেমনটা নিয়েছে বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ।

কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স লিগকে পাখির চোখ করা পিএসজির জার্মান কোচ টমাস টাচেল সুযোগ থাকা সত্ত্বেও সেই বিলাসিতা দেখাননি। বরং ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দলের তারকা খেলোয়াড়দেরই খেলিয়েছেন। আক্রমণভাগের প্রত্যেক তারকা পেয়েছেন গোলও।

নিজেদের মাঠ পার্স ডি প্রিন্সেসে পিএসজির গোল-বন্যার শুরুটা ৩২ মিনিটে। নেইমারের পাশ থেকে দলকে প্রথম এগিয়ে দেন আর্জেন্টাইন তারকা মাউরো ইকার্দি। ৩ মিনিট পর আবারও পিএসজির গোল উৎসব। এমবাপের পাশ থেকে এবারের গোলটি করেন পাবলো সারাবিয়া।

এই ২-০ গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় পিএসজি। বিরতি থেকে ফিরেই আবার পেয়ে যায় গোল। ৪৬ মিনিটে দলের তৃতীয় গোলটি করেন নেইমার নিজেই। এমবাপের পাশ থেকে টুর্নামেন্টে নিজের গোলের খাতা খুলেন ব্রাজিল তারকা। ৬৩ মিনিটে আবার একটা দায় মেটান নেইমার।

যে এমবাপের পাশ থেকে তিনি গোল করেছেন, সেই এমবাপেকেই বানিয়ে দেন গোল। ক্লাবকে চরম অস্বস্তিতে রাখা ফরাসি তারকা কোনো ভুল করেননি। একে একে আক্রমণভাগের প্রতেকেই গোল পেলেও বাকি ছিলেন শুধু কাভানি। ৮৪ মিনিটে তিনিও সেই আক্ষেপ দূর করেন পেনাল্টি থেকে গোল করে।

এমনিতে পিএসজির হয়ে পেনাল্টি নেওয়ার অধিকার নেইমারের। তবে কাল কাভানিকে গোলদাতার তালিকায় শামিল করতেই কিনা বদান্যতা দেখিয়েছেন নেইমার। নিজে শট না নিয়ে পেনাল্টিটা নিতে দিয়েছেন কাভানিকে। বা্জিল তারকার যে বদান্যতায় পিএসজি কোচ-কর্তারা খুব খুব খুশি।

দারুণ এই জয়ে ৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই নকআউটপর্বে পা রাখল পিএসজি। এ গ্রুপ থেকে সমান ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। কাল রাতে যারা ৩-১ গোলে হারিয়েছে ক্লাব ব্রুজকে।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও