ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়ে প্যারিসে পা রাখেন মেসি

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০ | ১৪ মাঘ ১৪২৬

ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়ে প্যারিসে পা রাখেন মেসি

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৯

ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়ে প্যারিসে পা রাখেন মেসি

রেকর্ড ষষ্ঠ বারের মতো ব্যালন ডি’অর জিততে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি, এই খবর ফাঁস হয়ে গেছে আগেই। গতকাল প্যারিসের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে সারা দুনিয়ার মেসি-ভক্তরাই তাই ছিলেন রোমাঞ্চিত।

রোমাঞ্চিত ছিলেন মেসি এবং তার সফর সঙ্গীরাও। পুরস্কার নিতে প্যারিসে যাওয়ার পথে নিশ্চিতভাবে উড়ু উড়ু করছিল মেসি ও তার সফরসঙ্গীদের মন। তবে সফরসঙ্গীদের একজনের মনে ব্যালন ডি’অর রোমাঞ্চ প্রভাব ফেলতে পারেনি!

তিনি মেসিরই ছোট ছেলে সিরো। পৌনে দুই বছর বয়সী সিরোর পক্ষে ব্যালন ডি’অরের মাহাত্ম্য বোঝার সাধ্য কি! বাবার আনন্দ যাত্রার সফরসঙ্গী হয়েও তাই সে নিজের কর্মেই ডুবে যায়! বার্সেলোনা থেকে প্যারিস গামী বিমানের মধ্যেই বাবার কোলে নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়েন। সেই ঘুম এতটাই গভীর ছিল যে, বিমান প্যারিসে অবতরণের পরও সিরোর ঘুম ভাঙ্গেনি।

ফলে ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়েই বিমান থেকে নামেন মেসি। পরে বিমানবন্দর থেকে হোটেলগামী বাসেও মেসি চড়েন ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়ে। ঘুমের ছেলেকে কোলে নিয়ে মেসির প্যারিসে পা রাখার সেই দুর্লভ দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দী করতে ভুল করেননি ফটো সাংকাদিকরা।

বিশ্বসেরা ফুটবলারের স্বীকৃতি স্মারক ব্যালন ডি’অর নিতে এসেছেন ঘুমন্ত ছেলেকে কোলে নিয়ে! ক্যামেরার ফোকাসের সুবাদে সারা দুনিয়া আরেকবার দেখে নিয়েছে বাবা মেসির মমতাময় পিতৃরূপ। অবশ্য ঘুমানোর কাজটা বিমানে-বাসেই সেরে নেন সিরো। রাতের আলোকোজ্জ্বল পুরস্কার মঞ্চে গিয়ে এক ফোটাও ঘুমাননি!

ভোট যুদ্ধে মর্যাদার ব্যালন ডি’অর জয়ের খবর মেসিকে আগেই জানিয়ে দিয়েছিল পুরস্কার প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, ফ্রান্সের বিশ্বখ্যাত ফুটবল সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল’। ফলে পুরোপুরি প্রস্তুত হয়েই পরিবারবর্গ ও বন্ধু-বান্ধব নিয়ে প্যারিসে পা রাখেন মেসি।

তিন ছেলে তার। তবে ব্যালন ডি’অর নিতে সঙ্গে এনেছিলেন দুই ছেলেকে। কি কারণে যেন বড় ছেলে থিয়াগোকে সফরসঙ্গী বানাননি। তবে স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জোকেও সফরসঙ্গী করতে ভুলেন করেননি মেসি। মেসির ব্যালন ডি’অরের সফরসঙ্গী হয়েছিলেন তার ক্লাব সতীর্থ আতোইন গ্রিজমান, মার্ক আন্দ্রে তের স্টেগান ও ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াংও।

কেআর

 

ফুটবল: আরও পড়ুন

আরও