সুযোগ পেয়েও রোনালদোকে সই না করানোর আক্ষেপ

ঢাকা, বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

সুযোগ পেয়েও রোনালদোকে সই না করানোর আক্ষেপ

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩৫ অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০১৮

print
সুযোগ পেয়েও রোনালদোকে সই না করানোর আক্ষেপ

আর্সেন ওয়েঙ্গারের সাথে আর্সেনালের ২২ বছরের সম্পর্কের ইতি ঘটছে। আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন, মৌসুম শেষে আর্সেনাল ছাড়ছেন তিনি। দীর্ঘ দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে নানা উত্থান-পতনে ইংলিশ ক্লাবটির প্রধান সারথি ছিলেন ওয়েঙ্গার। ক্লাবটিকে এনে দিয়েছেন বহু শিরোপা। তবে অপূর্ণতাও আছে। সেটি হচ্ছে সুযোগ পেয়েও পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে সই না করানোর আক্ষেপ। এই আক্ষেপ নিয়েই আর্সেনালের ক্যারিয়ার শেষ করছেন তিনি। তার কথায়, ‘রোনালদো সেই খেলোয়াড় যাকে আমরা দলে আনতে পারিনি।’

১৯৯৬ সালে আর্সেনালের কোচ হিসেবে যোগ দেন ওয়েঙ্গার। তারপর বহু খেলোয়াড় এনেছেন তিনি দলে। আরো অনেক ফুটবলারকেই দলে আনতে চেয়েছিলেন। সেই তালিকায় রোনালদো ছাড়াও ছিলেন লিওনেল মেসিও। তবে তার বড় আক্ষেপ রোনালদোকে নিয়ে। কারণ ২০০৩ সালে তার সাথে সাইন করার কথাবার্তা কিছুটা এগিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু সেই আলোচনার মধ্যেই আর্সেনালের চেয়ে বেশি টাকায় তরুণ রোনালদোকে কিনে নেয় আরেক ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সেই কথা উল্লেখ করে ৬৮ বছর বয়সী ওয়েঙ্গার বলেছেন, ‘কিছু কিছু বিষয় আপনাকে ভিন্নভাবে করতে হয়। কিন্তু দর কষাকষির সমস্যা হচ্ছে, কখন ছাড় দিতে হবে, কখন দেয়া যাবে না—সেই বিষয়টি জানতে হয়। আমরা তার সাথে ৪.৫ মিলিয়ন পাউন্ডে আলোচনা করছিলাম। এবং আমরা চুক্তির খুব কাছাকাছি চলে গিয়েছিলাম। কিন্তু ম্যানইউ ১২ মিলিয়ন পাউন্ড অফার করে বসল, সেসময় যা আমাদের পক্ষে দেওয়া সম্ভব ছিল না।’

ম্যানইউতে রোনালদোর ৬ বছরের ক্যারিয়ারে ক্লাবটি ৮ টি শিরোপা জেতে। যার মধ্যে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতেছে ৩বার। আর ২০০৭-০৮ মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন হয় ম্যানইউ। ২০০৯ সালে সেই সময়ের রেকর্ড ট্রান্সফার প্রায় ৮০ মিলিয়ন পাউন্ডে রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি জমান রোনালদো।

রোনালদোকে না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে ওয়েঙ্গার আরো বলেছেন, ‘আপনি ভাবতে পারেন, ওই সময় আমরা থিয়েরি অঁরি ও রোনালদোকে একসাথে পেতে পারতাম। এরকম হলে নিশ্চিতভাবেই আর্সেনালের ইতিহাস ভিন্নরকম হতে পারতো।’

রোনালদোই নয়, সেস ফ্যাব্রিগাস, মেসি ও জেরার্ড পিকের বিষয়েও আগ্রহী ছিলেন ওয়েঙ্গার। তার মধ্যে ফ্যাব্রিগাসকেই কেবল মাত্র দলে ভেড়াতে পেরেছিলেন তিনি, ‘আমরা তিনজনের জন্য চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু কাজ হয়নি।শুধু ফ্যাব্রিগাসকে নিতে পেরেছিলাম। সে একজন অসাধারণ খেলোয়াড়।’

পিকে ও মেসির এজেন্টের কারণেই তাদের দলে নিতে ব্যর্থ হয়েছেন জানিয়ে ওয়েঙ্গার বলেছেন, ‘মেসি ও পিকের বিষয়টি ব্যর্থ হয়েছে তাদের এজেন্টের কারণে। পিকের এজেন্ট চেয়েছিল সে ম্যানইউতে যাক। আর বার্সেলোনা মেসিকে হারাতে চায়নি।’

সূত্র : ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডটইউকে।

পিএ/ক্যাট

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad