বোল্টকে হাতে-কলমে ফুটবল শেখালেন ম্যারাডোনা

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫

বোল্টকে হাতে-কলমে ফুটবল শেখালেন ম্যারাডোনা

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১০ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৮

print
বোল্টকে হাতে-কলমে ফুটবল শেখালেন ম্যারাডোনা

বুধবার সুইজারল্যান্ডের বাসেলে এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন সর্বকালের সেরা স্প্রিন্টার উসাইন বোল্ট। এটা সবারই জানা। যেটা অজানা ছিল, সেটা হলো বাসেলের এই ম্যাচের মধ্যদিয়ে বোল্টকে ফুটবলে শিখিয়েছেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা। একেবারে হাতে-কলমে শিক্ষা যাকে বলে। বল কিভাবে শট নিতে হয়, কিভাবে গোল করা যায়, কিভাবে বল দখল নিতে হয়, কিভাবে ড্রিবলিং করতে হয়, নিজের কারিশমা ঢেলে সবকিছু বোল্টকে শিখিয়ে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর।

না, ম্যারাডোনা বোল্টের দলে ছিলেন না। ছিলেন প্রতিপক্ষ দলের কোচ। বোল্টের দলের কোচ ছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হোসে মরিনহো। কিন্তু শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রতিপক্ষ বলে কিছু নেই। ম্যারাডোনার মনের উচ্ছ্বাসেই ম্যাচ শুরুর আগে শিক্ষার পাঠ খুলে বসেন প্রতিপক্ষ বোল্টের জন্য। বোল্টও প্রতিপক্ষ দলের কোচের পরামর্শ-দীক্ষা গ্রহণ করেছেন দৃঢ় মনোযোগের সঙ্গে।

ম্যাচটিতে বোল্টের সঙ্গে অনেক কিংবদন্তি ফুটবলারই খেলেছেন। নেদারল্যান্ডসের সাবেক তারকা খেলোয়াড় প্যাট্রিক ক্লাইভার্ট, ফ্রান্সের ১৯৯৮ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ডেভিড ত্রেজেগে, মার্শেল দেশাই, ব্রাজিল কিংবদন্তি রবার্তো কার্লোসসহ আরও অনেকেই নিজেদের ফুটবল কারিশমা দেখিয়েছেন আরেকবার।

তবে বাকি সবাই মাঠে নেমেছিলেন শুধুই মনের আনন্দ প্রাপ্তির লক্ষ্যে। মনের আনন্দের পাশাপাশি বোল্টের লক্ষ্য প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অর্জনও। ২০১৭ লন্ডন বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপের মধ্যদিয়ে ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডকে বিদায় বলেছেন বোল্ট। এরপরই জ্যামাইকান বজ্রবিদ্যুৎ ঘোষণা দেন পেশাদার ফুটবলে নাম লেখানোর। প্রকাশ্যেই বলেছেন প্রিয় ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলতে চান ফুটবল।

সেই লক্ষ্যে এরই মধ্যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে ফুটবল ট্রায়ালও দিয়েছেন ৩১ বছর বয়সী বোল্ট। ডর্টমুন্ডের হয়ে ফুটবলের দীক্ষা নিতে যাচ্ছেন আবারও। এই সপ্তাহেই জার্মান ক্লাবিটির হয়ে আবার অনুশীলনে নামবেন। তার আগে সুইজারল্যান্ডে পেয়ে গেলেন ম্যারাডোনা নামের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলের হাতে-কলমের দীক্ষা।

ছাত্র বোল্টকে শেখাতে গিয়ে ম্যারাডোনা বিশ্বজুড়ে ফুটবল কোচদের জন্য অন্য রকম একটা বার্তাও। ছাত্রকে কোনো কিছু শেখানোর আগে তার প্রশংসা করা চাই। প্রশংসা করলে সেই ছাত্র শেখার ব্যাপারে আরও বেশি আগ্রহী হয়ে উঠে। মনোযোগ দিয়ে শোনে প্রতিটি পরামর্শ। ছাত্র বোল্টকে শেখাতে গিয়ে ম্যারাডোনা যেমন বলেছেন, ‘দারুণ খেলছ। কিন্তু সব সময়ই শট নিতে হয় সোজা পায়ে। পা বাকা করলে লক্ষ্যে শট নেওয়া সম্ভব হবে না।’

দেখা যাক ম্যারাডোনার মতো ফুটবল ঈশ্বরের শিক্ষা পেয়ে বোল্ট কতটা দক্ষ ফুটবলার হয়ে উঠতে পারেন!

কেআর

 

 
.



আলোচিত সংবাদ