নেইমারকে নিয়ে বার্সেলোনা শিবিরে চাপা অস্থিরতা!

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫

নেইমারকে নিয়ে বার্সেলোনা শিবিরে চাপা অস্থিরতা!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৮

print
নেইমারকে নিয়ে বার্সেলোনা শিবিরে চাপা অস্থিরতা!

চোট তাকে তিন মাসের জন্য ছিটকে ফেলেছে মাঠের বাইরে। তারপরও সংবাদ শিরোনাম হওয়ার ধারাটা ধরে রেখেছেন নেইমার। বরং মাঠের পারফরম্যান্সের চেয়েও আলোচনায় এখন বেশি। ফুটবল দুনিয়ায় পিএসজির ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডই এখন আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে। তাকে আরও একবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে এসেছে দলবদল গুঞ্জন। আর সেই দলবদল গুঞ্জনে এবার জড়িয়ে গেছে তার সাবেক ক্লাব বার্সেলোনার নামও। পিএসজি ছেড়ে নেইমার আবার বার্সেলোনায় ফিরতে চান বলেই গুঞ্জন রটেছে। তিনি নাকি বুঝতে পেরেছেন, ন্যু-ক্যাম্পই তার জন্য আদর্শ জায়গা।

নেইমার সত্যিই আবার বার্সেলোনায় ফিরতে চান কিনা, সেটা তিনিই ভালো জানেন। তবে তাকে জড়িয়ে সাম্প্রতিক এই গুঞ্জন বার্সেলোনা শিবিরে সৃষ্টি করেছে চাপা অস্থিরতা! অস্থিরতার কারণ, নেইমারের ফেরার প্রশ্নে বার্সেলোনার খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের বিপরীতমুখী অবস্থান।

বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা সবাই চান, নেইমার আবার ন্যু-ক্যাম্পে ফিরে আসুক। কিন্তু বার্সেলোনার কর্তারা নেইমারের সঙ্গে পুনরায় চুক্তির বিষয়টি ভাবতেই পারছেন না। তারা তা ভাবছেনও না। বার্সেলোনার খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা নেইমারের ফেরার বিষয়ে নিজেদের এই বিপরীতমুখী অবস্থানটা দুনিয়াকে জানিয়ে দিয়েছেন প্রকাশ্যেই।

কদিন আগে বার্সার ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার ইভান রাকিতিচ সরাসরিই বলেন, নেইমার আবার ফিরতে চাইলে তাকে ন্যু-ক্যাম্পে স্বাগতই জানাবেন তারা। রাকিতিচ এটাও বলেছেন, আবার নেইমারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলাটা হবে তার জন্য রোমাঞ্চকর।

গতকাল সোমবার তার সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন এই জানুয়ারিতেই ১৬০ মিলিয়ন ইউরোয় বার্সেলোনায় যোগ দেওয়া ফিলিপে কুতিনহোও। শুধু জাতীয় দল সতীর্থই নন, নেইমার কুতিনহোর খুব ভালোবন্ধুও। সেই বন্ধুকে আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে কুতিনহো বলেছেন, নেইমারের আবার ন্যু-ক্যাম্পে ফেরাটা হবে দারুণ ব্যাপার, ‘নেইয়ের ফেরা নিয়ে আমার অনুভূতিও রাকিতিচের মতোই। আমি চাই সেরা খেলোয়াড়েরা এখানে আসুক। নেইমার নিশ্চিতভাবেই সেরাদের একজন। ব্রাজিল জাতীয় দলে তার সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে খেলি। এটা আমার জন্য সত্যিই দারুণ ব্যাপার। তার আবার এখানে ফিরে আসাটা হবে দারুণ।’

শুধু রাকিতিচ-কুতিনহোই নন, লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ, জেরার্ড পিকেরাও চান নেইমার আবার ফিরে আসুক। ক্লাব ছাড়লেও নেইমারের সঙ্গে তাদের বন্ধুত্বের বন্ধনটা আগের মতোই অটুট। গত আগস্টে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর নেইমার বেশ কয়েকবারই বার্সেলোনায় গেছেন বন্ধু মেসি-সুয়ারেজ-পিকেদের সঙ্গে দেখা করতে। মেসি-সুয়ারেজরাও সাদরে গ্রহণ করেছেন নেইমারকে। একসঙ্গে কাটিয়েছেন অন্তরঙ্গ সময়। তারাও তাই বন্ধুকে আবার ন্যু-ক্যাম্পে দেখতে চান।

কিন্তু বার্সার কর্তারা বিষয়টা ভাবতেই পারছেন না। গত আগস্টে বার্সা কর্তাদের সঙ্গে নেইমারের সম্পর্ক ছেদটা সুখকর ছিল না। বরং সেটা ছিল অনেক বেশি তিক্ততার। নেইমারকে ধরে রাখার জন্য অনুরোধ-অনুনয়সহ সম্ভাব্য সবকিছুই করেছে বার্সা কর্তারা। তারপরও সব সম্পর্ক ছিন্ন করে নেইমার ২২২ মিলিয়ন ইউরোয় পাড়ি জমিয়েছেন পিএসজিতে। যে ঘটনা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে একে অন্যের বিরুদ্ধে মামলা পর্যন্ত করেছে।

সেই মামলা এখন বিচারাধীন। দলবদল নিয়ে যে খেলোয়াড়ের সঙ্গে মামলায় পর্যন্ত জড়াতে হয়েছে, সেই খেলোয়াড়ের সঙ্গে আবার চুক্তি করার কথা ভাবতে না পারারই কথা। বার্সেলোনা সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউ নেইমারের আবার ন্যু-ক্যাম্পে ফেরার বিষয়টি উড়িয়েই দিয়েছেন। তার হয়ে বার্সেলোনার মুখপাত্র জোসেফ ভিভেস বলেছেন, ‘নেইমার আবার বার্সেলোনায় ফিরতে চান কিনা, এ বিষয়ে আমরা অবগত নই। এই ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় আমাদের ক্লাব ছেড়ে চলে গেছে। চলে যাওয়ার সময়েই আমরা তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছি। এরপর আর কিছু ঘটেনি। কিছু ঘটনার প্রশ্নও আসে না।’

বার্সেলোনা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দেও বলেছেন, নেইমারের আবার ন্যু-ক্যাম্পে ফেরার কোনো সম্ভাবনাই তিনি দেখছেন না। বার্সেলোনার সমর্থকরাও চান না, নেইমারের সঙ্গে আবার চুক্তি করুক ক্লাব। আগস্টে ক্লাব ছাড়ার ঘটনায় নেইমারের উপর বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা এতোটাই ক্ষুব্ধ হন যে, ন্যু-ক্যাম্পে তার কুশপুত্তলিকা দাহ পর্যন্ত করেছে। ‘অর্থলোভী’, ‘নোংরা আবর্জনা’, ‘কীট’ বলে আখ্যায়িত করে। তারা কিছুতেই চান না সেই ‘কীট’ আবার ফিরুক।

ক্লাব কর্তা-কোচ-সমর্থকদের এমন বিরূপ মনোভাবের পরও কেন নেইমারকে ফেরাতে চাইছেন মেসি-সুয়ারেজরা? কারণও আছে। তারা জানেন, বার্সেলোনা না নিলে নেইমারকে নিয়ে নেবে রিয়াল মাদ্রিদ। মেসি-সুয়ারেজরা কিছুতেই চানছেন না, নেইমারের মতো সেরা খেলোয়াড় শত্রু শিবিরে যোগ দিক! নেইমার রিয়ালে গেলে, সেটা বার্সেলোনার জন্য বিপদ বার্তা হবে বলেই মনে করছেন তারা!

কেআর

 

 
.




আলোচিত সংবাদ