যে জন্য আলভেসকে অপছন্দ রোনালদো-রামোস ও রিয়ালের

ঢাকা, রবিবার, ২০ মে ২০১৮ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

যে জন্য আলভেসকে অপছন্দ রোনালদো-রামোস ও রিয়ালের

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৫৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
যে জন্য আলভেসকে অপছন্দ রোনালদো-রামোস ও রিয়ালের

এল ক্লাসিকোর উত্তেজনা মিশিয়ে ফুটবল বিধাতা যেন নিজ গুণেই বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের ‘শত্রু’ বানিয়ে দেন রিয়াল মাদ্রিদের। বার্সেলোনায় খেলা খেলোয়াড়েরা যেন রিয়ালের দুই চোখের কাটা। তবে বার্সার অন্য সব খেলোয়াড়দের তুলনায় দানি আলভেসের সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের তিক্ততাটা একটু বেশিই। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান এই ডিফেন্ডার চরম ঘৃণিত রিয়াল শিবিরে। তবে অন্যদের তুলনায় আলভেসের প্রতি রিয়ালের দুজনের ঘৃণা সবচেয়ে বেশি। পরিস্থিতিটা এমন যে, আলভেসের নাম শুনলেই যেন গায়ে জ্বালা ধরে রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোস ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর!

কেন? উত্তর খুঁজতে গেলে আপনাকে ঘাটতে হবে দীর্ঘ ১৪ বছরের ইতিহাস। সেভিয়া ও বার্সেলোনা মিলিয়ে স্পেনে ১৪টি বছর কাটিয়েছেন দানি আলভেস। দীর্ঘ এই সময়ে কতবার যে রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হয়েছেন, সেই হিসাব করা কঠিন। আর মাঠের সেই মুখোমুখি দ্বৈরথে যেসব তিক্ততার ঘটনা ঘটেছে, তার নির্যাসই যেন তিলেতিলে তৈরি করেছে চরম তিক্ততার দেয়াল!

আলভেসের ১৪ বছরের স্পেন ক্যারিয়ার বলছে, ফুটবল বিধাতা খুব সযত্নে আলভেসকে রিয়াল শিবিরের চরম ঘৃণার পাত্রে পরিণত করেছে। পেছনে বসে ফুটবল বিধাতা কলকাঠি যদি না-ই নাড়তেন, তাহলে একজন ভিন্ন দেশি হয়েও আলভেসই কেন মাঠের বিতর্কিত ঘটনার জন্য বারবার রিয়ালের কড়া সমালোচনা করবেন।

রিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচে যতবারই বিতর্কিত ঘটনা ঘটেছে, সেভিয়া বা বার্সেলোনার অন্য খেলোয়াড়েরা মুখে কুলুপ এঁটে থাকলেও সরব হয়েছেন আলভেস। তির্যক বাক্যবাণে ধুয়ে দিয়েছেন রিয়ালকে। রোনালদো এবং রামোসকে আক্রমণ করেছেন ব্যক্তিগতভাবেও। সুযোগ পেলে রামোস-রোনালদোও কথার ঝাঁজে তুলেছেন আলভেসের পিঠের চামড়া!

রোনালদো-রামোসের সঙ্গে আলভেসের সেই পুরোনো তিক্ততাকে নতুন করে সামনে নিয়ে এসেছে রিয়াল ও পিএসজির মধ্যকার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ দ্বৈরথ। আজ বুধবার রাতেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলর প্রথম লেগে মাঠে নামছে রিয়াল ও পিএসজি। বার্নাব্যুর এই ম্যাচ আলভেসকেও দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে শত্রু রিয়ালের মুখোমুখি। কারণ, বার্সেলোনা থেকে জুভেন্টাস ঘুরে আলভেস এখন পিএসজিতে। ফরাসি ক্লাবটির রক্ষণভাগের অন্যতম সৈনিক হিসেবেই আলভেস আজ যাচ্ছেন বার্নাব্যুতে।

শুধু বার্নাব্যুতে যাওয়াই নয়, মাঠেও রোনালদোকে কড়া পাহারায় রাখাই হবে আলভেসের প্রধান কাজ। মাঠে দেখা হবে আরেক শত্রু রামোসের সঙ্গেও। পুরোনো সেই তিক্ততার জের হিসেবে আজও রোনালদো-রামোস ও রিয়ালের সঙ্গে আলভেসের নতুন তিক্ততা দেখা দেবে কিনা, বলবে সময়।

তবে অতীতের যেসব কথায় আলভেসকে রিয়াল ও রোনালদো-রামোসের চরম অপছন্দের পাত্রে পরিণত করেছে, তার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বাক্য প্রতিবেদনের স্বার্থে তুলে ধরা হলো। ২০০৪-২০০৫ মৌসুমে সেভিয়ায় একে অন্যের সতীর্থ ছিলেন আলভেস ও রামোস। তখন দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্কই ছিল। কিন্তু সেই বন্ধুত্ব শত্রুতায় ঢেকে যায় রামোস রিয়ালে এবং আলভেস বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার পর।

এল ক্লাসিকোর উত্তেজনায় অনেকবারই সাবেক সতীর্থ রামোসের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছে আলভেসের। ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মনের সেই ক্ষোভ ঢালেন গত মৌসুমে! কড়া ভাষায় সমালোচনা করেন রামোসের। এমনকি যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন।

রিয়ালে যোগ দেওয়ার পরপরই একবার সেভিয়ার মুখোমুখি হন রামোস। ম্যাচে সেভিয়ার সমর্থকেরা দুয়ো দেন রামোসকে। যে অভিজ্ঞতা আলভেসের কখনোই হয়নি। সেই উদাহরণ টেনে আলভেস বলেন, ‘ওই দায়টা রামোসেরই। কারণ, সেভিয়ার হয়ে সে ইতিহাস গড়ে পারেননি। সমর্থকদের কোনো শিরোপা উপহার দিতে পারেননি। কিন্তু আমি তাদের ভালোবাসা পেয়েছি। কারণ আমি সেভিয়ার হয়ে ৬ বছরে অনেক অনেক শিরোপা জিতেছি।’

পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় রামোস বলেন, ‘এই কথাগুলো বলেছেন দানি আলভেস। যিনি এক বছর ব্রাজিলকে ভালোবাসে। পরের বছরই সে স্পেনকে ভালোবাসার সিদ্ধান্ত। তার পরের বছর ইতালিকে ভালোবাসে।’ রোনালদোর সঙ্গে আলভেসের তিক্ততা চরম মাত্রায় পৌঁছায় ২০১৪ সালে। রোনালদোর ফিফা ব্যালন ডি’অর জয়কে কেন্দ্র করে।

আলভেস অভিযোগ করেন, ২০১৪ সালে রোনালদো ব্যালন ডি’অর জিতেছেন রাজনৈতিক কারণে! পারফরম্যান্সের সুবাদে নয়। তার মতে, পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে সেবার ব্যালন ডি’অর জয়ের একমাত্র দাবিদার ছিলেন লিওনেল মেসি।রোনালদো-আলভেসের মধ্যে একবার বেধে ছিল জাতীয় দলের খেলার সময়ও।

তবে ব্যালন ডি’অর জয় নিয়ে প্রশ্ন তোলার ঘটনার পর থেকে আলভেসের নামই শুনতে পারেন না রোনালদো! আলভেস ক্লাব রিয়ালকে নিয়েও বাঁকা কথা বলেছেন অনেকবার। তবে সবচেয়ে বাজে ভাষায় সমালোচনা করেন ২০১৩ সালে। সেবার লিগের এক ক্লাসিকোতে মাঠেই দুই দলের খেলোয়াড়েরা চরম বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে।

পরে তা রূপ নেয় হাতাহাতি, ধাক্কাধাক্কিতেও। ম্যাচ শেষে আলভেস মাঠের তিক্ত অভিজ্ঞতার পুরো দায় চাপিয়ে দেন রিয়ালের কাঁধে। ক্লাব রিয়ালকে আখ্যায়িত করেন ‘নোংরা বা বাজে ক্লাব’ হিসেবে!

আজ সেই ‘শত্রু’ আলভেস যখন বার্নাব্যুতে পা ফেলবেন, সর্বস্ব ঢেলে দিয়ে রিয়ালের আক্রমণ প্রতিহত করার চেষ্টা করবেন, বার্নাব্যুর সমর্থকরা তাকে যে দুয়োর মাধ্যমেই স্বাগত জানাবে, সেটা অনুমান করাই যায়!

কেআর

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad