মসজিদে ঘুমানো কি শরীয়তে অনুমোদিত?

ঢাকা, সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০ | ১৪ মাঘ ১৪২৬

মসজিদে ঘুমানো কি শরীয়তে অনুমোদিত?

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:০১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

মসজিদে ঘুমানো কি শরীয়তে অনুমোদিত?

প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম। আমি জানতে চাচ্ছিলাম, মসজিদে ঘুমানোর ব্যাপারে শরীয়তে অনুমোদন আছে কিনা। দা’ওয়াহর (ধর্মপ্রচার) কার্যক্রমে অংশগ্রহণে বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার ফলে আমি অনেককে দেখেছি এবং আমি নিজেও এমনটা করেছি। কিন্তু অনেকেই এই কাজটি পছন্দ করেন না এবং তারা এটির বিরোধিতা করেন। দয়া করে এসম্পর্কে কিছু বলবেন?

উত্তরঃ ওয়া আলাইকুম আসসালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।

আপনি যদি কোন মসজিদে যান, তবে সেখানে আপনার যতক্ষণ ইচ্ছা অবস্থান করতে পারেন। আপনাকে শুধু  এমন কথা ও কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে, যা মসজিদে নিষিদ্ধ।

আপনি যদি কোন মসজিদে যান, সেখানে আপনি হয়তো কিছু সময় অবস্থান করবেন। তখন আপনি ফরজ নামাজের সময় হলে সেই নামাজ আদায় করবেন এবং পাশাপাশি কিছু নফল নামাজ হয়তো আদায় করবেন। তাছাড়া মসজিদে বসে কুরআন থেকে তেলওয়াত ও অধ্যয়নও করতে পারেন। এরপর আপনার ইচ্ছা হবে কিছু সময়ের জন্য বিশ্রাম করার।

মসজিদে ঘুমানোর ব্যাপারে শরীয়তে কোন নিষেধাজ্ঞা নেই। প্রকৃতপক্ষে এর অনুমতি রয়েছে এবং কখনো কখনো তার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। রাসূল (সা.) আমাদের জন্য ইতিকাফ তথা মসজিদে একটি নির্দিষ্ট সময় অবস্থান নিয়ে ইবাদতের জন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। সাধারণত কয়েক দিন মসজিদে অবস্থানের মাধ্যমে ইতিকাফ করা হয়। বিশেষ করে রমজানের শেষ দশদিন ইতিকাফ করার জন্য রাসূল (সা.) মুসলমানদেরকে অনুপ্রাণিত করেছেন।

এই ইতিকাফে মসজিদে অবস্থানের সময়কালীন দৈনন্দিন জীবনের যাবতীয় কাজ থেকে সম্পূর্ণভাবে মুক্ত হয়ে একান্তে আল্লাহর ইবাদতে ইতিকাফকারী আত্মনিয়োগ করে। এসময় ইতিকাফকারীকে একটানা মসজিদেই অবস্থান করতে হয়। সুতরাং, তার ঘুমের প্রয়োজন হলে তাকে তখন মসজিদেই ঘুমাতে হবে এবং এক্ষেত্রে শরীয়তের নির্দেশনাও এরূপ।

তবে এখানে বলে রাখা প্রয়োজন, মসজিদ যেহেতু ইবাদতের স্থান, তাই অকারনে এখানে শোয়া বা ঘুমানোর ক্ষেত্রে আলেমগণ নিরুৎসাহ প্রদান করে থাকেন। কোন কারণ ছাড়াই মসজিদে এসে শুয়ে পড়ার থেকে আমাদের বিরত থাকা উচিত।

জবাব প্রদান করেছেন, শেখ আবু সালেহ, ইসলামিক স্কলার, যুক্তরাষ্ট্র।

এমএফ/

 

ফতোয়া/মাসায়েল: আরও পড়ুন

আরও