গুনাহ কেন সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ?

ঢাকা, শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৬

গুনাহ কেন সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ?

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:৪৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

গুনাহ কেন সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম। মুহতারাম, আমার ইদানিং কিছু প্রশ্ন বারবার মনে আসছে। খুব দুশ্চিন্তাও হচ্ছে। আশা করছি, প্রশ্নগুলোর উত্তর দেবেন।

১। আমি জানি, আল্লাহ সবকিছুর খালিক এবং মালিক। তো আমার মনে প্রশ্ন আসছে তবে কি আল্লাহ জগতের সব মন্দ কাজেরও খালিক এবং মালিক? যেমন কুফর, শিরক, সমস্ত রকমের কুফুরী, শিরকী কাজ এসব কিছুরও সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ? এসব কিছুর মালিকও তিনি? এসব প্রশ্ন আমার মনে কিছুদিন যাবত আসছে। এ ব্যাপারে আমি কি বিশ্বাস করব নাকি চুপচাপ থাকব? আমার শুধু মনে হয় এগুলো না বিশ্বাস করলে ঈমান থাকবে না। আবার মনে হয় এসব বিশ্বাস করলে শিরক হতে পারে। এক্ষেত্রে আমার করণীয় কি?

এই ধরনের প্রশ্ন আসলে আমি বলি এবং বিশ্বাস করি এভাবে যে “এসব ব্যাপারে আল্লাহ ও তার রাসূল যা বিশ্বাস করতে বলেছেন আমি তাই বিশ্বাস করলাম”। এতে কি আমার উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে কুরআন ও হাদীসে যা আছে তার প্রতি বিশ্বাস করা হয়ে যাবে?

২। এই ধরনের নানা রকম প্রশ্ন ইদানিং আমার মাথায় আসছে। এগুলো কি আমি জানার জন্য সবসময় আলেমদের প্রশ্ন করব, নাকি প্রশ্ন করব না?  

উত্তর:

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।

১। হ্যাঁ, সমস্ত গুনাহ আল্লাহ তাআলা সৃষ্টি করেছেন। কিন্তু সৃষ্টি করেছেন উক্ত গুনাহ করার জন্য নয়। বরং গুনাহসমূহ থেকে বেঁচে থেকে আল্লাহর প্রিয় হওয়ার জন্য। গুনাহ সৃষ্টি না হলে তো পরীক্ষাই হতো না।

এভাবে বোঝা যেতে পারে দা, বটি, চাপাতি ইত্যাদি তৈরি করা হয়েছে গোশত বা অন্যান্য ভারি শক্ত বস্তু কাটার জন্য। এখন কেউ যদি বলে এই ধারালো বস্তু কে তৈরি করল?–যার ফলে মানুষ খুন হচ্ছে! তাহলে কি এই প্রশ্ন হবে? মানুষ খুনের দায় তো তার উপর আসতে পারে না। কেননা, সে তো এজন্য তা বানায়নি।

অনুরূপভাবে কেউ যদি বলে এই যৌন স্পৃহা আল্লাহ কেন সৃষ্টি করেছেন?–যার কারণে মানুষ বিভিন্ন গুনাহে লিপ্ত হচ্ছে! এটাও ভুল। কেননা যৌন স্পৃহা তো আল্লাহ তাআলা দিয়েছেন তা স্ত্রীর সঙ্গে প্রকাশ করার জন্য। যৌন স্পৃহা না থাকলে স্ত্রীর হক কীভাবে আদায় হতো? বংশবৃদ্ধি ও পিতৃপরিচয় কীভাবে রক্ষা পেতো?

সারকথা, আল্লাহ তাআলা সকল গুনাহ সৃষ্টি করেছেন তা থেকে বেঁচে থেকে আল্লাহর প্রিয় হওয়ার জন্য। গুনাহ করার জন্যে নয়।

২। হ্যাঁ, কোন বিষয়ে সংশয় হলে অবশ্যই আলেমদের শরণাপন্ন হবেন।

(দ্রষ্টব্য: সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ৩৩৬)

জবাব প্রদান করেছেন- মুফতি আবুল হুসাইন, প্রধান মুফতি ও মুহাদ্দিস, আল-জামেয়াতুল ইসলামিয়া আশরাফুল উলূম মাদরাসা, নড়াইল।

এমএফ/

 

ইসলাম: আরও পড়ুন

আরও