চুল বুঝে বেছে নিন আপনার কন্ডিশনার

ঢাকা, রবিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৭ | ৬ কার্তিক ১৪২৪

চুল বুঝে বেছে নিন আপনার কন্ডিশনার

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৭

print
চুল বুঝে বেছে নিন আপনার কন্ডিশনার

চুলের যত্নে কন্ডিশনারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কন্ডিশনার বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন- ইনস্ট্যান্ট কন্ডিশনার, এটি শ্যাম্পু করার পর ভেজা চুলে লাগাতে হয় এবং ২-৩ মিনিট রেখে আলতো করে ধুতে হয়। হালকা ক্ষতিগ্রস্ত চুলের জন্য উপকারী ইনস্ট্যান্ট কন্ডিশনার।

ডিপ বা গভীর কন্ডিশনার, এটিও একই নিয়মে ব্যবহার করতে হয় কিন্তু ৫-১০ মিনিট চুলে রেখে দিতে হয়। রাসায়নিক উপাদানে ক্ষতিগ্রস্ত চুলের জন্য ডিপ কন্ডিশনার প্রয়োজন।

লিভ অন কন্ডিশনার, চুল শ্যাম্পু করার পর তোয়ালে দিয়ে ভালো করে মুছে তারপর সেই চুলে লিভ ইন কন্ডিশনার লাগাতে হয়। লিভ অন কন্ডিশনার ধুয়ে ফেলতে হয় না। খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্ত চুলের জন্য লিভ অন কন্ডিশনার উপযুক্ত। 

কন্ডিশনার এর প্রকারভেদ-

প্রতিদিন ব্যবহারের জন্য তেলসমৃদ্ধ কন্ডিশনার ভালো। এই কন্ডিশনারের লিনোলিন নামক উপাদান সহজে সব চুলে ছড়িয়ে গিয়ে চুলের অয়েল ব্যালান্স বজায় রাখে।

অ্যান্ট্রিড্যানড্রাফ কন্ডিশনার স্ক্যাল্পের পিএইচ ব্যালান্স বজায় রেখে চুলে খুশকি কমায়।

লিভ ইন কন্ডিশনার চুল চকচক করে, চুলের সতেজ ভাব বজায় রাখে।

কন্ডিশনিং স্প্রে হিট ড্যামেজ থেকে চুল রক্ষা করে।

প্যাক কন্ডিশনার ঘন ক্রিমের মতো। চুলের ওপর ঘন আস্তরণ তৈরি করে।

হোল্ড কন্ডিশনার হেয়ার জেলের মতো চুলের শেপ তৈরি করতে সাহায্য করে।

ঘরোয়া কন্ডিশনার-

অলিভ অয়েল, ভেজিটেবল অয়েল, পানি ও মধু একসঙ্গে অল্প গরম করুন। ঠাণ্ডা করে ভেজা চুলে স্প্রে করুন। মাথায় তোয়ালে জড়িয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

মেয়োনেজ ভেজা চুলে লাগান। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

পানিতে গ্লিসারিন ও ভিনেগার মিশিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। চুল চকচকে হবে। 

চুল বুঝে কন্ডিশনার

রুক্ষ চুলে ময়েশ্চার ও প্রোটিনসমৃদ্ধ কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। ভিটামিন-ই অ্যালোভেরাসমৃদ্ধ কন্ডিশনারও শুষ্ক চুলের জন্য ভালো।

তৈলাক্ত চুলে এমন কন্ডিশনার ভালো, যাতে ফ্যাটি এসিড কম থাকে।

বেশ কয়েক দিন চুল পরিষ্কার করার পর যদি জট না পড়ে বা ভেঙে না যায়, তাহলে আপনার স্বাভাবিক চুল। এ ধরনের চুলের জন্য লিভ অন কন্ডিশনার আদর্শ।

কোঁকড়ানো চুলের স্ক্যাল্পের অয়েল চুলের শেষ প্রান্তে এসে পৌঁছায় না। এ ধরনের চুলের জন্য ডিপ কন্ডিশনার, যা চুলের ময়েশ্চার বজায় রাখে। জোজোবা অয়েল, অ্যাভোকাডোসমৃদ্ধ কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।

কালার চুলের জন্য যেসব কন্ডিশনার বাজারে পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করুন। হারবাল কন্ডিশনার এ ধরনের চুলের জন্য ভালো। 

চুলে Fungal Infection থাকলে বা অনেক দিনের খুশকি থাকলে ketoconazole সমৃদ্ধ শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু শ্যাম্পু করার আগে চুলের পুষ্টির জন্য চুলের যত্ন করবেন। 

তথ্য ও ছবি : ইন্টারনেট 

ইসি/

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad