সৌন্দর্য ধরে রাখতে মাল্টি ভিটামিন

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৪

সৌন্দর্য ধরে রাখতে মাল্টি ভিটামিন

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৮

print
সৌন্দর্য ধরে রাখতে মাল্টি ভিটামিন

আপনি আপনার ত্বকের জন্য যতই রুপচর্চা করে থাকুন না কেনো উদ্যেশ্য কিন্তু একটাই। সেটা হচ্ছে ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখা। আর তার জন্য আপনি এটা সেটা যতো কিছুই ব্যবহার করে থাকুন না কেনো ত্বকের ভিতরে গিয়ে কাজ করে কিছু কিছু ভিটামিন। যেমন আপনি ত্বক নরম করার জন্য মুখে কলার প্যাক ব্যবহার করলেন। ত্বক নরম ও কোমল হল। এটা কিন্তু কলার জন্য নয়, কলায় থাকা বিশেষ কিছু ভিটামিনের জন্য। তাই আগে আপনার এটা জানা দরকার কোন কোন ভিটামিন আপনার ত্বকের যত্নে কাজে লেগে থাকে। আসুন আজ আমরা তা জেনে নেই।

ভিটামিন ‘ডি’: বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের ত্বকের কোলাজেন কমে যায়। ত্বকে দেখা দেয় বলিরেখা। ভিটামিন ডি ত্বকের এই সমস্যা দূর করে। এছাড়া ত্বকের ব্রণ দূর করতেও বিশেষভাবে সাহায্য করে ভিটামিন ডি।

যাদের মুখে ব্রণ এর সমস্যা রয়েছে, তারা প্রতিদিন কিছু সময় সূর্যের আলোতে দাড়িয়ে থাকলে বেশ উপকার পাবে। লিচু, মাশরুম, দুধ, ডিম ও বিভিন্ন মাছে ভিটামিন ডি রয়েছে।

ভিটামিন-বি: এটি কার্বোহাইড্রেট হজম করতে সাহায্য করে, স্নায়ুর কার্যকারিতা বাড়িয়ে দেয়। সৌন্দর্যের সঙ্গে হজমের সরাসরি সম্পর্ক আছে। হজম ক্ষমতা বাড়াতে ‘বি’ ভিটামিন সাহায্য করে।

তাছাড়া চুল ঝরা কিংবা নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। অবসাদজনিত সমস্যা কাটায়। তাজা ফল, সবজি, শস্যদানা, মাছ, ডিম ও পনিরে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘বি’ পাবেন।

ভিটামিন-সি: ভিটামিন ‘সি’ ত্বকের কোষগুলোকে যেকোনো ক্ষতি থেকে রক্ষা করে, কোলাজেন উৎপাদনও বাড়িয়ে তোলে।

ব্রণ বা মেছতামুক্ত মসৃণ ত্বকের জন্য প্রতিদিন ভিটামিন ‘সি’যুক্ত ফল খাওয়া ভালো। ক্যাপসিকাম, স্ট্রবেরি, কাঁচা মরিচ, পেয়ারা ব্রকলি ইত্যাদিতে ভিটামিন ‘সি’ পাবেন।

ভিটামিন-এ: ভিটামিন ‘এ’তে থাকা বিটা-ক্যারোটিন ত্বকের পুরনো কোষ ঝরে গিয়ে নতুন কোষ জন্মাতে সাহায্য করে। রঙিন ফল ও শাকসবজি যেমন- কমলা, গাজর, কুমড়া, পালংশাক ও লালশাকে ভিটামিন ‘এ’ রয়েছে।

ওমেগা থ্রি: ‘ফ্যাট’ শব্দটি শুনতে খারাপ লাগলেও ওমেগা থ্রিকে বলা হয় গুড ফ্যাট বা ভালো চর্বি। ত্বকের রং উজ্জ্বল ও কোমল করার জন্য উপযোগী। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে রক্ষা, ত্বকের অভ্যন্তরীণ দূষণ বা ময়লা কাটাতে সাহায্য করে।

মূলত কডজাতীয় মাছ যেমন- স্যামন, ম্যাকরেল, সার্ডিন আখরোট ইত্যাদিতে ভিটামিন ‘এ’ পাওয়া যায়। এ ধরনের চর্বিযুক্ত মাছ খেতে ইচ্ছে না করলে সাপ্লিমেন্ট হিসেবে খেতে পারেন ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল অথবা এ ভিটামিনযুক্ত ফলমুল ও শাকসবজি।

ভিটামিন-ই: ভিটামিন ‘ই’ কোষ সুরক্ষার কাজ করে। ত্বকের ভেতরে-বাইরে জীবাণু আসা-যাওয়ার মাঝখানে দেয়ালের মতো সুরক্ষা দেয়। ত্বক কুঁচকে যাওয়া রোধ করে। ত্বক সজীব ও সতেজ রাখে। ভিটামিন ‘ই’ অ্যান্টি এজিং ক্রিম হিসেবেও পরিচিত।

লাল আটার রুটি, ভুট্টা, সূর্যমুখীর তেল, বাদাম, টমেটো, অ্যাসপারাগাস এবং দানাজাতীয় শস্যেও পাওয়া যায় ভিটামিন ই। তবে ভিটামিন ‘ই’-জাতীয় খাবার কাঁচা খেতে হয়। কারণ আগুনের আঁচে খাদ্যগুণ নষ্ট হয়ে যায়।

তথ্য: সায়মা জামান, বিউটি এক্সপার্ট, সায়মা বিউটি পার্লার।

ইসি/

 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad