উত্তর কোরিয়া সীমান্তে সেনা মোতায়েন করছে রাশিয়া

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট ২০১৭ | ৮ ভাদ্র ১৪২৪

উত্তর কোরিয়া সীমান্তে সেনা মোতায়েন করছে রাশিয়া

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৫১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৭

print
উত্তর কোরিয়া সীমান্তে সেনা মোতায়েন করছে রাশিয়া

উত্তর কোরিয়ায় ডোনাল্ড ট্রাম্প হামলার নির্দেশ দিতে পারে এই আশঙ্কায় দেশটির সীমান্তে সেনা মোতায়েন করছে রাশিয়া। রাশিয়া আশঙ্কা করছে কিম জং উনকে যেকোন সময় আক্রমণ করতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। এর ফলে রাশিয়া সীমান্ত দিয়ে শরণার্থীদের বহর প্রবেশ করতে পারে। খবর ডেইলি মেইল ও দ্য সানের।

উত্তর কোরিয়ার সাথে চীনের দক্ষিণ সীমান্তে চীনের দেড় লাখ সেনা মোতায়েনের পর রাশিয়াও সতর্ক অবস্থা ঘোষণা করে। ট্রেনে করে সৈন্যবাহিনী ও সামরিক সরঞ্জাম সীমান্তের দিকে নিয়েছে রাশিয়া।

উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে গেলে পরিবর্তিত পরিস্থিতি মোকাবিলয়ায় এ পদক্ষেপ নিচ্ছে রুশ কর্তৃপক্ষ।

যুদ্ধ বাঁধলে উত্তর কোরিয়া থেকে বহু লোক আশ্রয়ের উদ্দেশে রাশিয়ায় ঢুকে পড়তে পারে। এ জন্য সীমান্তে সতর্ক অবস্থান নিচ্ছে রাশিয়ান বাহিনী।

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে রাশিয়ার প্রায় ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সীমান্তে সেনা মোতায়েন শুরু করেছে তারা।

যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে ‘যুদ্ধ যুদ্ধ উত্তেজনা’এই অঞ্চলে স্থিতিশীলতা নষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। ফলে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া ও চীন। বৃহস্পতিবার স্থলপথে যুদ্ধযানসহ রুশ সেনাদল কোরীয় সীমান্তে পৌঁছেছে। ট্যাংক, সামরিক হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপান সফরের সময় যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স সাফ বলেছেন, ‘ধৈর্য্যের দিন শেষ।’ তিনি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘ধৈর্য্যের পরীক্ষা নিতে’ উত্তর কোরিয়াকে নিষেধ করেছেন।

উত্তর কোরিয়া পাল্টা হুমকি দিয়ে বলেছে, উসকানিমূলক তৎপরতা অব্যাহত রাখলে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর পরমাণু বোমা হামলা চালাবে তারা।

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা এবং যুক্তরাষ্ট্রের হামলার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে কোরীয় উপদ্বীপে যুদ্ধের উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে উত্তর কোরিয়ার নাকের ডগায় বারবার যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক মহড়ার জবাবে দিন দিন আরো বেশি যুদ্ধংদেহী হুংকার দিচ্ছে পিয়ংইয়ং।

উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জড়ানো না-জড়ানো এখন নির্ভর করছে ট্রাম্পের ওপর। চরম অস্থির উত্তর কোরিয়ায় হামলা হলে তার প্রভাব কতটা সুদূর প্রসারি হবে, তা নিয়ে শংসয় রয়েছে আন্তর্জাতিক মহলে।

এসবিআই/এমডি

print
 
nilsagor ad

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad