সিরিয়ায় তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়ছে ইউরোপীয় যোদ্ধারা, নিহত ২

ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫

সিরিয়ায় তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়ছে ইউরোপীয় যোদ্ধারা, নিহত ২

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮

print
সিরিয়ায় তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়ছে ইউরোপীয় যোদ্ধারা, নিহত ২

সিরিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমের আফরিন এলাকায় ইউরোপের দুটি দেশের দুই নাগরিক নিহত হয়েছেন। আফরিনে কুর্দি সন্ত্রাসী সংগঠন পিওয়াইডি/পিকেকের বিরুদ্ধে তুরস্কের অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ চলার সময় তারা নিহত হন।

সামজিক মাধ্যমের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে একথা জানিয়েছে আনাদোলু এজেন্সি।

সামাজিক মাধ্যমের বিভিন্ন তথ্য থেকে জানা গেছে, সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযান চলার সময় দেশটির সেনাবাহিনী যেসব সন্ত্রাসীকে ‘নিষ্ক্রিয়’ করেছে, তাদের মধ্যে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের নাগরিক রয়েছে।

‘নিষ্ক্রিয়’ করা বলতে তুরস্কের নিরাপত্তা বাহিনী সাধারণত বুঝিয়ে থাকে, অভিযানে হয়তো ওই ব্যক্তি নিহত অথবা আটক হয়েছে। তবে সিরিয়ায় অভিযানের ক্ষেত্রে তুর্কি সেনাবাহিনী ‘নিষ্ক্রিয়’ করা বলতে নিহত হওয়াকে বুঝায়।

সামাজিক মাধ্যমের তথ্য থেকে আরও জানা গেছে, গত সপ্তাহে আফরিনে তুরস্কের সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চলার সময় স্পেনের স্যামুয়েল প্রাডা লিওন (সাংকেতিক নাম বারান গালিসিয়া) এবং ফ্রান্সের অলিভিয়ের ফ্রাসোয়াঁ জঁ লে ক্লেইনশকে (সাংকেতিক নাম কেন্ডাল ব্রেইঝ) ‘নিষ্ক্রিয়’ করা হয়।

ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসীরা পিওয়াইডি/পিওয়াইকেকের হয়ে লড়াই করছে।

আনাদোলু জানিয়েছে, পশ্চিমা দেশগুলো দায়েশ (ইসলামিক স্টেট)-এ তাদের নাগরিককে যোগদান বন্ধ করতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে, কিন্তু তারা পিওয়াইকে/পিকেকে সংগঠনটিকে সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যায়িত করতে ব্যর্থ হয়েছে।

নেদারল্যান্ডের নাগরিক সোয়ের্ড হিগার (সাংকেতিক নাম বারান স্যাসন) সিরিয়ার দের আল-জর অঞ্চলে সিরিয়া ও ইরানের বাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ের সময় নিহত হন।

আফরিন থেকে পিওয়াইডি/পিকেকের সন্ত্রাসীদেরকে তাড়ানোর জন্য জানুয়ারির ২০ তারিখে অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ শুরু হয়।

তুরস্কের জেনারেল স্টাফ জানিয়েছে, দেশটির সীমান্তকে সুরক্ষিত করতে এবং সিরিয়াকে সন্ত্রাসিদের কবল থেকে বাঁচাতে এই অভিযান শুরু করেছে তারা।

এমআর/এমএসআই

 
.




আলোচিত সংবাদ