সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা হোম কোয়ারেন্টাইনে
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা হোম কোয়ারেন্টাইনে

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২০

সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা হোম কোয়ারেন্টাইনে
যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফেরার পর জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। যুক্তরাজ্যে দেড় মাস বেড়ানোর পর গত ১৬ মার্চ দুপুরে তিনি দেশে ফিরেন। 

রুনা লায়লা ঢাকার আসাদগেট অ্যাভিনিউতে নিজ বাড়িতে স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

এ মাসের ২৭ তারিখ এবং এপ্রিলে দুটি স্টেজ শো করার কথা ছিলো তার। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে এসব শো বাতিল করেছেন রুনা।  

করোনাভাইরাস সম্পর্কে শুক্রবার রাতে ফেসবুকে একটি লেখা পোস্ট করেছেন রুনা লায়লা। সেখানে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাজ্য থেকে ফিরে আমার নিজের শরীরে কোনো ধরনের উপসর্গ না থাকার পরও স্বেচ্ছায় পরিবার আর গৃহকর্মীদের নিয়ে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ মেনে চলছি।’

তিনি বলেন, ‘আমার পরিবারের অন্য সদস্য এবং স্টাফরা এই নিয়ম মেনে চলছে। সবাই একবার ভাবুন। সতর্ক থাকুন এবং সবকিছু থেকে নিজেকে নিরাপদে রাখুন, অন্যদেরও নিরাপদে রাখুন।’

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আজ শনিবার আরও এক ব্যক্তির মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

শনিবার মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান, দেশে নতুন চারজনসহ মোট ২৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এর আগে গত ১৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথমবারের মতো একজনের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে শনিবার পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৩৯৮ জনে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২ লাখ ৭৫ হাজার ৮৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে বর্তমানে ১ লাখ ৭২ হাজার ৫৬১ জন চিকিৎসাধীন এবং ৭ হাজার ৭৬৫ জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন।

এছাড়া করোনাভাইরাস আক্রান্ত ১ লাখ ৩ হাজার ৩১০ জনের মধ্যে ৯১ হাজার ৯১২ জন (৮৯ শতাংশ) সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং ১১ শতাংশ রোগী মারা গেছেন।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৮৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এসকে

 

: আরও পড়ুন

আরও