শাকিব-অপুর ডিভোর্স কার্যকর চলতি মাসে

ঢাকা, সোমবার, ২১ মে ২০১৮ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

শাকিব-অপুর ডিভোর্স কার্যকর চলতি মাসে

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১২:০১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮

print
শাকিব-অপুর ডিভোর্স কার্যকর চলতি মাসে

অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্স নোটিশ পাঠানোর তিন মাস হতে চলছে। ইতোমধ্যে শাকিব খান জানিয়েছেন, অপুর সঙ্গে সমঝোতায় আগ্রহী নন তিনি। সে হিসেবে কয়েকদিন পরই দুই তারকার ডিভোর্স কার্যকর হতে যাচ্ছে।

২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর অপুকে ডিভোর্স নোটিশ পাঠান শাকিব। প্রথমে স্বীকার না করলেও নায়িকা পরে জানান নোটিশ পেয়েছেন।

চলতি ২২ ফেব্রুয়ারি ডিভোর্স নোটিশ পাঠানোর তিন মাস বা নব্বই দিন পূরণ হচ্ছে। এর মধ্যে যদি দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা না হয়, তবে ডিভোর্স কার্যকর হবে।

সালিশের জন্য ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ১৫ জানুয়ারি শাকিব-অপুকে তলব করা হয়। ওইদিন অপু উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না শাকিব কিংবা তার প্রতিনিধি। সে সময় ভারতের হায়দরাবাদে ‘নোলক’-এর লোকেশন অবস্থান করছিলেন তিনি।

এদিকে দ্বিতীয় দফায় শাকিব-অপুকে মঙ্গলবার তলব করা হয়েছে উত্তর সিটি করপোরেশনের মহাখালিস্থ ৩ নম্বর আঞ্চলিক অফিসে। কিন্তু এবারও হাজির হচ্ছেন না শাকিব। ‘সুপার হিরো’ সিনেমার শুটিংয়ে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় রয়েছেন এ নায়ক।

অবশ্য গণমাধ্যমে ‘কোটি টাকার কাবিন’ নায়ক জানিয়ে দিয়েছেন, এ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে আগ্রহী নন তিনি। কারণ উভয়পক্ষের মধ্যে শ্রদ্ধা অবশিষ্ট নেই।

আরো জানান, ডিভোর্স কার্যকর হওয়ার পর অপু বিশ্বাসকে বিয়ের দেনমোহর বাবদ সাত লাখ টাকা পরিশোধ করে দেবেন। এছাড়া ছেলে আব্রাম খান জয়ের ভরণ পোষণের দায়িত্ব তার।

১৭ বা ১৮ ফেব্রুয়ারি দেশে ফিরবেন শাকিব। এরপর ভারত ও স্কটল্যান্ডে যাবেন শুটিংয়ে।

শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস তাদের বিয়ের খবর নয় বছর ধরে গোপন রেখেছিলেন। ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল অপু ছেলেকে নিয়ে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে বিয়ের কথা প্রকাশ করেন।

জানান, কলকাতার একটি ক্লিনিকে ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর জন্ম হয় তাদের ছেলে আব্রাহাম খান জয়ের।

এরপর থেকে দুই তারকার মধ্যে টানাপোড়েন যাচ্ছিল। যার পরিণতি ডিভোর্সের দিকেই গড়াচ্ছে।

ডব্লিউএস

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad