চিকিৎসক সঙ্কটে চলছে নিকলী প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮ | ১০ মাঘ ১৪২৪

চিকিৎসক সঙ্কটে চলছে নিকলী প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি ১:২৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
চিকিৎসক সঙ্কটে চলছে নিকলী প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র

লোকবলের অভাবে কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের চিকিৎসাসেবা এখন জোড়াতালি দিয়ে চলছে। ফলে এলাকার কৃষকেরা তাদের পশু ও হাঁস-মুরগী প্রকৃত চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীর ১১টি পদের বিপরীতে রয়েছেন সাতজন। এ কেন্দ্রে তিনজন ফিল্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট (ভিএফএ) পদ থাকলেও বর্তমানে কর্মরত রয়েছেন দুইজন, একজন ড্রেসার, একজন ভিএস এবং একজন এফ এ এফ আইসহ চারটি পদ শূন্য পদ থাকার ফলে উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে একজন ভেটেরিনারি সার্জন (ভিএস), একজন ফিল্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট (ভিএফএ), একজন কৃত্রিম প্রজনন, একজন ড্রেসার এর পদ শূন্য রয়েছে। এ কেন্দ্রের পদ শূন্য থাকায় মাঠকর্মীরা ঠিকমতো মাঠপর্যায়ে গবাদিপশুকে টিকা দেওয়া, হাঁস-মুরগি খামার গঠনে উৎসাহ প্রদানসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম বিঘ্নিত হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন হাঁসের খামারি অভিযোগ করে বলেন, কর্মকর্তা না থাকার সুযোগে মাঠকর্মীরা ঠিকমতো কাজ করে না। যদিও খামারে যায় তবে তাদের ৩০০ থেকে ৪০০ ফি দিতে হয়।

নিকলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কারার শাহরিয়ার আহম্মেদ তুলিপ বলেন, লোকবল না থাকায় গবাদিপশু, হাঁস-মুরগির চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হওয়ার বিষয়টি খুব দুঃখজনক।

তিনি হতাশা প্রকাশ করে বলেন, যেখানে প্রয়োজনের চেয়ে লোকবল কম, সেখানে লোকবল বাড়ানোর জন্য উপজেলা মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির আগামী সভায় এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলব।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, লোকবল কম থাকায় চিকিৎসাসেবা ও সম্প্রসারণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না। এ অবস্থায় কোনোরকমে জোড়াতালি দিয়ে যাবতীয় অফিসিয়াল কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে।
এ ছাড়াও এলাকায় পল্লী চিকিৎসকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় বাড়িতে বসে প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে পারলেও, কৃষকরা তাদের গবাদি পশু সু-চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। পদ শূন্যর বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কয়েকবার লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

এসআইপি/বিএইচ/

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad