মাদক নিরাময় কেন্দ্রে যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬

মাদক নিরাময় কেন্দ্রে যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

সাভার প্রতিনিধি ৬:২৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

মাদক নিরাময় কেন্দ্রে যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

ঢাকার সাভারে 'নিউ আদর' নামে একটি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে জাহাঙ্গীর মিয়া (৩৮) নামে এক মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

সাভারের রেডিও কলোনী এলাকায় অবস্থিত 'নিউ আদর' মাদক নিরাময় কেন্দ্রে এ ঘটনার পর, শুক্রবার দুপুরে নিহত ওই যুবককে এনাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় মাদক নিরাময় কেন্দ্রের লোকজন।

নিহত জাহাঙ্গীর ময়মনসিংহ জেলার মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি সাভারের তালবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে বড় ভাইয়ের সাথে ওই এলাকায় হোটেল ব্যবসা করতেন।

নিহতের ভাই মানিক জানান, মাদক সেবনে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ায় জাহাঙ্গীরকে বৃহস্পতিবার বিকালে রেডিও কলোনীর 'নিউ আদর' মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। পরে রাতে ফোন করে তার শারীরিক অবস্থা জানতে চাইলে তারা জানায় সে ভালো আছে।

এরপর সকালে বারবার ফোন করা হলেও তারা আর সাড়া দেয়নি। পরে শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে ওই মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে ফোন করে দ্রুত এনাম মেডিকেলে যেতে বলে। সেখানে জরুরি বিভাগে গিয়ে জাহাঙ্গীরের মরদেহ দেখতে পায় স্বজনরা। তবে ঘটনাস্থলে সে সময় মাদক নিরাময় কেন্দ্রের কাউকে পাওয়া যায়নি।

নিহত জাহাঙ্গীরের শ্যালক মো. সাদেক বলেন, হাসপাতালে গিয়ে তার মরদেহ দেখতে পাই। তার সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মাদক নিরাময় কেন্দ্রের লোকজনের মারধরের কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, একদিন আগেই জাহাঙ্গীরকে ওই নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তবে নিহতের ঘাড়, চোখসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে ঘটনার পর থেকে নিউ আদর নিরাময় কেন্দ্রের লোকজন পলাতক থাকায় তাদের কাউকেই পাওয়া যায়নি। প্রতিষ্ঠানটির মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এসএ/পিএসএস

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও