ছদ্মবেশী পাগলটি যেভাবে ধরা পড়ল

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

ছদ্মবেশী পাগলটি যেভাবে ধরা পড়ল

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৭:১৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২০

ছদ্মবেশী পাগলটি যেভাবে ধরা পড়ল

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে প্রতারণা করে স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতার হাতে আটক হয়েছে এক ছদ্দবেশী পাগল।

বুধবার দুপুরে উপজেলা সদরের দক্ষিণ বেতডোবা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আটকের নাম নিজাম উদ্দিন (৬৫)। সে রংপুর জেলার পীরগাছা উপজেলার পশ্চিম বামনীকুন্ডা গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে।

প্রতারণার শিকার দক্ষিণ বেতডোবা গ্রামের গৃহবধূ কামরুন নাহার বলেন, বুধবার দুপুরে পাগল বেশি এক লোক বাড়ির গেটে এসে দশটি টাকা চেয়েছিল। পরে আমার ছেলেকে বলি ওই পাগলকে তুমি দশটি টাকা দিয়ে স্কুলে চলে যাও। কিন্তু তখন পাগল আমাকে ডেকে বলে আমি তোর হাত দিয়ে টাকা নিতে চেয়েছিলাম তুই ভুল করছিস তোর টাকা নিব না। পরে কোরআনের অনেক আয়াত শুনিয়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে এক চিমটি মাটি তুলে সেই মাটি খেতে বলে এবং কাউকে বলতে নিষেধ করে। পরে সেই মাটি খেয়ে দেখি মাটি মিষ্টি লাগে, এতে করে আমার বিশ্বাস চলে আসে। তখন সে আরও ভয় দেখায় এবং বলে এ ভুলের কারণে জান্নাতে যেতে পারবি না। কথা না শুনলে ২১ দিনের ভিতরে স্বামী এবং ছেলের গলা দিয়ে রক্ত বের হবে বলে ভয় দেখিয়ে আমার সকল সোনা-গহনা কোরআন শরীফের ভিতরে নিয়ে আজমীর শরীফ যেতে বলে। গেলে ওইখান থেকে একটি গায়েবি পাথর দিবে সেটি নিয়ে আমল করলে নাকি আমার সকল ভুল-গুনাহ মাফ হয়ে যাবে। না যেতে পারলে তার কাছে দিতে বলে।

পরে আমি বিশ্বাস করে সোনার গহনা কোরআন শরীফের ভিতরে দিয়ে কোরআন শরীফ তার কাছে দিয়ে দিই। পরে ওই লোক বলে আমি কোন দিকে চলে যাব সেটি দেখবি না তাহলে কিন্তু আমাকে পাবি না এবং তোর ক্ষতি হয়ে যাবে। এই কথা বলে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। পরে আমার সন্দেহ হয় এবং আমি চিৎকার দেই। আমার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে গিয়ে ওই পাগলকে ধরে পুলিশে দেয়।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ওসি হাসান আল মামুন আটকের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তদন্ত করে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এএএন/এএসটি

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও