সিরাজদিখানে ৫ ইটভাটা বন্ধ, ২০ লাখ টাকা জরিমানা

ঢাকা, বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০ | ১৬ মাঘ ১৪২৬

সিরাজদিখানে ৫ ইটভাটা বন্ধ, ২০ লাখ টাকা জরিমানা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি ১০:০৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৯, ২০১৯

সিরাজদিখানে ৫ ইটভাটা বন্ধ, ২০ লাখ টাকা জরিমানা

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার ৫টি ইটাভাটা পানি দিয়ে উৎপাদন বন্ধ করে ৪ ইটভাটা থেকে ২০ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তানজীদ আহমেদের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার বেলা ১২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত  ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

পাঁচটি ইটভাটা হলো মেসার্স মামা ভাগিনা ব্রিকস, মেসার্স মোল্লা ব্রিকস, মেসার্স আকাশ ব্রিকস, কেবিসি ব্রিকস ও মায়ের দোয়া ব্রিকস।

মোল্লা ব্রিকসকে ৮ লাখ টাকা, আকাশ ব্রিকসকে ৫ লাখ টাকা, কেবিসি ব্রিকসকে ২ লাখ টাকা, মায়ের দোয়া ব্রিকসকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। 

পরিবেশ অধিদফতর থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তানজীদ আহমেদ জানান, এসব ভাটা সনাতন পদ্ধতিতে ইট তৈরির মাধ্যমে মারাত্মকভাবে পরিবেশ দূষণ ও বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল। ভেকু দিয়ে মেসার্স মামা ভাগিনাকে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। বাকি দুইটি ভাটায় পানি ছিটিয়ে ইট, কাঁচামালসহ সব বিনষ্ট করে দেয়া হয়েছে। আরো দুইটি ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা চলছে।

পরিবেশ অধিদপ্তর তথ্য মতে, মুন্সীগঞ্জে মোট ৭৮টি ইটভাটা রয়েছে। এর মধ্যে সিরাজদিখান উপজেলায় ৬৯টি ইটভাটা রয়েছে। জেলায় ৩২টি ভাটা বৈধ বাকিদের ছাড়পত্র নেই। আজ ৫টি ভাটায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

পর্যায়ক্রমে বাকিদের উচ্ছেদ করা হবে বলে পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে। উপজেলার অধিকাংশ ইটভাটা বালুচর ইউনিয়নের ধলেশ্বরী নদী তীরে অবস্থিত।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বালুচরে নিয়ম অমান্য করে চলছে ৩৭টি ইটভাটা। দীর্ঘদিন ওই এলাকার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ধলেশ্বরী নদীর পাশঘেঁষা লোকালয় ও ফসলি জমিতে এসব ইটভাটা চললেও তা বন্ধ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে উল্লেখ্যযোগ্য ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। সেই সাথে ইটভাটার কারণে পরিবেশের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে বলে জানিয়েছেন তারা।

এইচআর

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও