স্বামীকে আটকে উপজাতি নারীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

ঢাকা, শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৬

স্বামীকে আটকে উপজাতি নারীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

সাভার প্রতিনিধি ৫:৩৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৯

স্বামীকে আটকে উপজাতি নারীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় স্বামীকে আটকে রেখে উপজাতি (মারমা) এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে চারজনের বিরুদ্ধে। এদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে আশুলিয়া ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকা থেকে রনিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকার ভাড়া বাড়িতে এ ঘটনার পর শনিবার রাতে আশুলিয়া থানায় মামলা করেন ওই নারী।

মামলার আসামিরা হলেন পাবনা জেলার আটঘরিয়া থানার পাইকপাড়া গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে রনি (২১), আশুলিয়ার ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকার খোরশেদ আলম খোকনের ছেলে জয় (২২), ফরিদপুর জেলার শামীম (২৬) ও ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকার কাইয়ুম মোল্লার ছেলে রাজু (২৬)।

মামলার বরাত দিয়ে আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রিজাউল হক জানান, অবৈধভাবে মদ তৈরি অভিযোগ তুলে উপজাতি দম্পতির ঘরে ঢোকে চার বখাটে। তাদের কাছে টাকা দাবি করে তারা। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ওই নারীর স্বামীকে মারধর করে পাশের একটি কক্ষে আটকে রাখে। পরে ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তিনজন।

পরে ওই নারীর গলায় থাকায় স্বর্ণের চেইন ও নগদ ১০ হাজার টাকাও হাতিয়ে নেয় তারা। ধর্ষনের ঘটনা কাউকে জানালে প্রাণনাশেরও হুমকি দেয় তারা।

ওসি আরও জানান, উপজাতি নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা ইতোমধ্যে রনি নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করেছি। অন্যদেরও গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ধর্ষনের শিকার ওই নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

এইচআর

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও