দুস্থদের হাতে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিল নেক্সাস

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫

দুস্থদের হাতে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিল নেক্সাস

জবি প্রতিনিধি ১:১৭ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৪, ২০১৮

print
দুস্থদের হাতে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিল নেক্সাস

‘জীর্ণ কুটিরে ঈদের চাঁদের হাসি' শ্লোগানকে ধারণ করে ‘নিয়ামত অফ ঈদ-২০১৮’ ইভেন্টের মাধ্যমে দুস্থ ও অসহায়দের হাতে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নেক্সাস ফাউন্ডেশন।

বুধবার (১৩ জুন) বি‌কে‌লে ঢাকার কামরাঙ্গীর চরের বিভিন্ন এলাকায় ঘরে ঘরে গিয়ে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেন।

সংগঠনের কর্মীরা জানান, নেক্সাস ফাউন্ডেশনের নিজস্ব ভলান্টিয়ার ও দাতাদের থেকে কয়েক সপ্তাহে প্রাপ্ত অর্থ দ্বারা দেশের সুবিধা-বঞ্চিত মানুষের ঘরে ঈদের আমেজ পৌঁছে দিতে তৈরী করা ঈদ বাজার প্যাকেট। প্রতিটি বাজার প্যাকেটে ছিল: পোলাও চাল, তেল, চিনি, গুঁড়ো দুধ, সেমাই ও মসলা। যা দিয়ে একটি পরিবার ঈদসহ পরবর্তী কয়েকটি দিন তৃপ্তি পাবেন বলে প্রত্যাশা তাদের।

এরপর এসব ইদ সামগ্রী নিয়ে ১১ সদস্যের একটি টিম ৫০টি পরিবারের জন্য এক সপ্তাহের খাবার নিয়ে ছড়িয়ে পরে। লাইনে কোনো সামগ্রী বিতরণ না করে অসচ্ছলদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসব সামগ্রী পৌঁছে দেন তারা।

এ বিষয়ে সংগঠনের প্রেসিডেন্ট ইয়াসিন উদ্দিন ইমন বলেন, আমাদের সংগঠনের একটি অন্যতম বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা অন্যান্য চ্যারিটেবল সংগঠন থেকে নেক্সাসকে আলাদা। সেটি হচ্ছে, প্রতিটি ঘর পরিদর্শন করে তাদের অবস্থা বিবেচনা করে তারপর সাহায্য দেওয়া। কোনোরূপ লাইনে দাঁড় করিয়ে কখনো সাহায্য দেওয়া হয় না। রোজা রেখে প্রচণ্ড রোদ উপেক্ষা করে নেক্সাসের অদম্য দলের সদস্যবৃন্দ চরের এক ঘর থেকে অন্য ঘরে ছুটে গিয়েছে। ঈদ বাজারের প্যাকেট বিতরণের মাধ্যমে দেশের সুবিধা-বঞ্চিত মানুষের ঘরে ঈদের আমেজ পৌঁছে দিয়েছে।

নেক্সাসের কর্ম পরিধি নিয়ে এর ভাইস প্রেসিডেন্ট রিয়াদ বলেন, নেক্সাস ফাউন্ডেশন ২০১৬ সালের ৪ মার্চ থেকে যাত্রা শুরুর পর থেকেই নানা রকমের সেবামূলক কার্যক্রম আয়োজন করে আসছে। ইফতার বন্টন, বিভিন্ন দিবসগুলোতে পথশিশুদের সাথে উদযাপন, শীতে কম্বল বিতরণ, বন্যায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়াসহ রক্ত পৌঁছানোর ব্যবস্থা করার জন্য রয়েছে নেক্সাসের একটি অঙ্গ সংগঠন 'নেক্সাস ব্লাড স্কোয়াড'। এই স্কোয়াড যেকোনো মুহূর্তে মুমূর্ষু রোগীর জন্য রক্ত পৌঁছানোর ব্যবস্থা করে।

আগামী দিনে আরো ব্যাপক পরিসরে ইভেন্ট আয়োজন করে গোটা বাংলাদেশে সেবামূলক কার্যক্রম ছড়িয়ে দিতে চায় সংগঠনটি।

‌জেডআই/এএস

 

 
.




আলোচিত সংবাদ