নিজেকে ‘সত্যিকারের সুখী মানুষ’ দাবি করলেন সাকিব

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬

নিজেকে ‘সত্যিকারের সুখী মানুষ’ দাবি করলেন সাকিব

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

নিজেকে ‘সত্যিকারের সুখী মানুষ’ দাবি করলেন সাকিব

ঝঞ্ঝাটমুক্ত এই পৃথিবীতে একটু ভালো থাকাই দায়। সত্যিকারের সুখে থাকা তো কল্পনারও বাইরে। স্বপ্নময় সেই ব্যাপারটিকেই বাস্তব বলে দাবি করলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার নিজেকে আখ্যায়িত করলেন এই দুনিয়ার সবচেয়ে সুখী মানুষ হিসেবে। বললেন সত্যিকারের সুখী মানুষ তিনি।

সাকিব নিজেকে ‘সত্যিকারের সুখী মানুষ’ হিসেবে জাহির করলেন বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে। আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এক আবেগঘন পোস্ট দিয়েছেন সাকিব। পোস্টে তিনি নিজেকে পরিবারের ভালোবাসার বাঁধনে আবদ্ধ বলেই দাবি করেছেন। যে বাঁধনের অগ্রভাগে স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির ও মেয়ে আলায়না হাসান অব্রি।

ম্যাচ ফিক্সিং প্রস্তাব পেয়েও তা গোপন রাখার অপরাধে বর্তমানে নিষিদ্ধ সাকিব। মানে সব ধরনের ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ড থেকে তিনি বাইরে। ফলে তার হাতে এখন অফুরন্ত সময়। ‘নিষিদ্ধ’ এই সময়টা কিছু বিজ্ঞাপনী কর্মকাণ্ড ও পরিবারের সঙ্গে কাটাচ্ছেন তিনি।

সারা ব্যস্ত সূচীর কারণে ক্রিকেটাররা পরিবারকে সময় দিতেই পারেন না। এক বছরের পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা সাকিবকে সেই অপূর্ণ ইচ্ছা পূরণের সুযোগ করে দিয়েছে। সুযোগ পেয়েই সাকিব উপলব্ধি করতে পেরেছেন পরিবারের সদস্যদের সান্নিধ-ভালোবাসা একজন মানুষকে কতটা সুখী করে তুলতে পারে।

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে আবেগঘন পোস্টে অন্তরের সেই সুখের বয়ানই করেছেন সাকিব. ‘পরিবারের ভালোবাসার বাঁধনে ঘিরে থাকা মানুষটাই সুখী। সে হিসেবে আমি সত্যিকারের সুখী মানুষ। জীবন সঙ্গী হিসেবে আমি চমৎকার একজনকে পেয়েছি, যে সকল সংগ্রাম ও যুদ্ধে আমার পাশে এসে দাঁড়ায়। আমার একমাত্র মেয়ের মুখের হাসিটা যেন আমাদের পৃথিবী।’

পোস্টে তিনি আরও লিখেছেন, ‘ক্রীড়াবিদদের জীবন মাঠের ভেতরেই কেটে যায়। পরিবারকে সেভাবে সময় দিতে না পারলেও আমার প্রিয়জনেরা কখনো তা নিয়ে অভিযোগ করেনি। বরং তাদের পক্ষ থেকে সব ধরনের সমর্থন পেয়েছি। আমি এই পৃথিবীর চেয়েও বেশি ভালোবাসি তাদের। আমার পরিবারকে ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা।’

আইসিসির নিষেধাজ্ঞার আদেশ সাকিবকে ক্রিকেটের বাইরে রেখেছে ঠিক। তবে তার সামনে যেন খুলে দিয়েছে পরিবারের অফুরন্ত ভালোবাসার সুখের দুয়ার।

কেআর 

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও