সেই ক্রিকেটারদের পিএসএলে নিষিদ্ধের হুমকি আজমলের
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

সেই ক্রিকেটারদের পিএসএলে নিষিদ্ধের হুমকি আজমলের

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯

সেই ক্রিকেটারদের পিএসএলে নিষিদ্ধের হুমকি আজমলের

শহীদ আফ্রিদি সরাসরিই বোমাটা ফাটিয়েছেন। স্পষ্ট করেই বলেছেন, আইপিএলের কারণেই পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে না শ্রীলঙ্কার সিনিয়র ক্রিকেটাররা। সঙ্গে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে আহ্বানও জানিয়েছেন, বোর্ডের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের পাকিস্তান সফরে যেতে বাধ্য করার জন্য।

আফ্রিদির মতো সাঈদ আজমল ওসব আকুতি-মিনতির ধার ধারেননি। পাকিস্তানের সাবেক স্পিনার বরং সরাসরি সেসব ক্রিকেটারদের পিএসএলে (পাকিস্তান সুপার লিগ) নিষিদ্ধ করার হুমকি দিয়েছেন! দেশের ক্রিকেট বোর্ডের উদ্দেশ্যে বলেছেন, যেসব বিদেশি ক্রিকেটার পাকিস্তান সফরে আসতে চাইবে না, তাদেরকে পিএসএলে নিষিদ্ধ করা হোক।

আজমল যে শ্রীলঙ্কার সেই ১০ সিনিয়র ক্রিকেটারের উদ্দেশ্যেই নিষেধাজ্ঞার হুমকিটা দিয়েছেন, সেটি স্পষ্টই। অনেক জটিলতা, নাটকের পর শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান সফরে যেতে রাজি হয়েছে শ্রীলঙ্কা। লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড এরই মধ্যে সফরে যাওয়ার বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে নিশ্চিত করেছে।

কিন্তু পূর্ণ শক্তির দল নয়। শ্রীলঙ্কা পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে মূলত নড়বড়ে, জোড়াতালির দল নিয়ে। কারণ, নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে পাকিস্তান সফরে যেতে রাজি হননি শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গা ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নেসহ ১০ সিনিয়র ক্রিকেটার।

মালিঙ্গা-করুনারত্নের সঙ্গে পাকিস্তান সফর থেকে নিজেদের সরিয়ে নেওয়া অন্য ৮ জন হলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, থিসারা পেরেরা, কুশল পেরেরা, দিনেশ চান্ডিমাল, সুরঙ্গা লাকমল, আকিলা ধনাঞ্জয়া, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ও নিরোশান ডিকভেলা।

বর্তমানের শ্রীলঙ্কা দলে তারকা ক্রিকেটার বলতে এরাই। অথচ তারাই একযুগে সফরে যেতে অনীহা প্রকাশ করেছেন। বন্ধুত্বের দায় সারতে লঙ্কান বোর্ড পাকিস্তান পাঠাচ্ছে জোড়াতালির দল। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের রাষ্ট্রপ্রধানদের সমান নিরাপত্তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরই সফরে যেতে রাজি হয়েছে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু তারপরও ওই ১০ সিনিয়র ক্রিকেটার রাজি হননি।

স্বাভাবিকভাবেই শ্রীলঙ্কান সিনিয়র ক্রিকেটারদের এই আচরণকে ভালোভাবে নেয়নি পাকিস্তানিরা। ক্রুদ্ধ আফ্রিদি তো এর জন্য কাঠগড়ায় তুলেছেন ভারতের আইপিএলকে। বলেছেন, আইপিএলের কারণেই পাকিস্তান সফরে যেতে রাজি হয়নি শ্রীলঙ্কার সিনিয়র ক্রিকেটাররা। আইপিএলের ফ্যাঞ্চাইজিগুলো নাকি হুমকি দিয়েছে, পাকিস্তান সফরে গেলে তাদের আইপিএল চুক্তি বাতিল করা হবে।

আইপিএল ফ্যাঞ্চাইজিগুলো চুক্তি বাতিলের হুমকি দিতে পারলে, পাকিস্তানিরা কেন নয়! সাঈদ আজমল বুঝি তাই পাকিস্তান সফরে যেতে রাজি না হওয়া ক্রিকেটারদের পিএসএলে নিষিদ্ধ করার দাবি জানালেন, ‘শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেওয়াটা কষ্টের। কারণ, পাকিস্তানে নিরাপত্তা ব্যবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। আমাদের বোর্ড বা সরকার সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত না করে কখনোই কোনো দলকে পাকিস্তান সফরে আসতে বলবে না।’

পিএসএলে নিষেদ্ধের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কা বা অন্য যে বিদেশি ক্রিকেটাররা পিএসএলে খেলতে আসে, তাদের উচিত জাতীয় দলের হয়ে পাকিস্তান সফরে আসা। কেউ আসতে রাজি না তাকে পিএসএলে খেলতে দেওয়া ঠিক হবে না।

পাকিস্তানের আরেক সাবেক ক্রিকেটার ফয়সাল ইকবালও আজমলের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন, ‘যারা পাকিস্তানে পিএসএল খেলাটা নিরাপদ মনে করে, জাতীয় দলের হয়েও তাদের পাকিস্তানে খেলতে আসা উচিত। যারা তা আসতে চাইবে না, তাদেরকে পিএসএলে নেওয়াটা উচিত নয়।’ তবে পাকিস্তানের হয়ে ২৬টি টেস্ট ও ১৮টি ওয়ানডে খেলা ফয়সাল আফ্রিদির অভিযোগের সঙ্গে একমত নন, ‘ভারতীয়রা এর সঙ্গে জড়িত আছে বলে আমার মনে হয় না।’

২০০৯ সালে এই শ্রীলঙ্কার টিমবাসে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নির্বাসিত। এরপর আর কোনো বড় দল পাকিস্তান সফরে যায়নি।

কেআর

 

 

: আরও পড়ুন

আরও