বাংলাদেশে বিরাট 'চ্যালেঞ্জ' দেখছেন ম্যাথুজ

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫

ত্রিদেশীয় সিরিজ

বাংলাদেশে বিরাট 'চ্যালেঞ্জ' দেখছেন ম্যাথুজ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
বাংলাদেশে বিরাট 'চ্যালেঞ্জ' দেখছেন ম্যাথুজ

এক সময় বিশ্ব ক্রিকেটে প্রচণ্ড দাপটই দেখাতো শ্রীলঙ্কা। ১৯৯৬ এর বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছিল অর্জুনা রানাতুঙ্গার ভয়ডরহীন ব্র্যান্ডের ক্রিকেট খেলা দলটি। অতটা না হলেও একেবারে কম ছিলো না জিম্বাবুয়েও। কিন্তু দুটি দলই আগের সেই দলের ছায়া হয়েই আছে। ঐতিহ্য হারিয়ে প্রতিনিয়ত খুঁজে ফিরছে নিজেদের। তবে সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার কোচের দায়িত্ব নিয়ে দলে বেশ পরিবর্তন এনেছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। আর জিম্বাবুয়েও বেশ কিছু অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের ফিরিয়ে আগের চেয়ে শক্তিশালী হওয়ার চেষ্টায়। আর ঘরের মাঠে টাইগাররা গত বছর তিনেক ধরেই দুর্দান্ত খেলছে। তাই ত্রিদেশীয় সিরিজটা বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলেই মনে করেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ।

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট। প্রথম দিনে মাঠে নামছে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। শ্রীলঙ্কার টুর্নামেন্ট শুরু হবে মঙ্গলবার। এর আগে শনিবার মিরপুরে অনুশীলনে এলেন লঙ্কান খেলোয়াড়রা। কোচ আর অধিনায়ক এলেন সংবাদ সম্মেলনেও। সেখানেই টুর্নামেন্ট নিয়ে ম্যাথুজ বললেন, ‘নির্দিষ্ট দিনটায় ভালো পারফর্ম করতে হবে। যে দল বেশি রান করবে, তারাই জিতবে। প্রতিটি দলই লড়াই করবে। বাংলাদেশ গত আড়াই বছরে দারুণ ক্রিকেট খেলছে। জিম্বাবুয়েও কয়েক বছর আগের তুলনায় ভালো খেলছে। বেশ কয়েকজন ভালো ক্রিকেটার ওদের ফিরে এসেছে। এটি তাই দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ টুর্নামেন্ট হবে।’

তবে বেশ কিছু দিন থেকেই শ্রীলঙ্কার দলটি বেশ অগোছালো। সাম্প্রতিক সময়ে দলটির পারফরম্যান্সও ভালো নয়। যে লঙ্কান দুর্গ ভাঙতে গিয়ে পৃথিবীর সব দলই নাকানিচুবানি খেতেন, সেখানে গত বছর ভাঙাচোরা দল নিয়ে ওয়ানডে সিরিজ জিতে আসে জিম্বাবুয়ে। লঙ্কানরা পড়ে লজ্জায়। ম্যাথুজ পদত্যাগ করেছিলেন তারপর। হাথুরুসিংহে কোচ হওয়ার পর এই সফর দিয়েই তাকে আবার নেতৃত্বে ফিরিয়েছেন। সেই শ্রীলঙ্কায় গেল বছরের মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশও সব সিরিজ ড্র করে ফিরেছিল। তবে এ সব কিছুকেই অতীত বললেন ম্যাথুজ। এবার বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলবেন বলে আশা ঝরল তার কণ্ঠে, ‘অতীত তো অতীত। আমরা সেটি নিয়ে কাতর হয়ে থাকতে চাই না। নতুন চ্যালেঞ্জের দিকে তাকিয়ে আছি। খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ও চ্যালেঞ্জিং হবে। আমরা অবশ্যই পারি (ঘুরে দাঁড়াতে)।’

এদিকে শ্রীলঙ্কার কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পরই বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছেন হাথুরুসিংহে। নেতৃত্বে ফিরিয়েছেন ম্যাথুজকে। নিজে হয়েছেন সফরের নির্বাচক দলের অংশ। তবে অতি মাত্রায় কঠোর খেতাব পাওয়া এ কোচের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতাও দারুণ বললেন অধিনায়ক, ‘গত প্রায় বছর দশেক ধরে হাথুরুসিংহের সঙ্গে আমার জানাশোনা। তার কাজ করার নিজস্ব ধরন আছে। তিনি স্ট্রিক্ট নন। তবে কখনও কখনও হতে পারেন। কেবলই শুরু করেছে, এটিই তার প্রথম সিরিজ। তবে আমাদের ক্রিকেটারদের খুব ভালোভাবে জানেন তিনি। আমাদের খোঁজখবরও রেখেছেন। তার সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমরা রোমাঞ্চিত।’ হাথুরুসিংহে যখন শ্রীলঙ্কা 'এ' দলের কোচিং স্টাফ হিসেবে কাজ করতেন তখন ম্যাথুজের উত্থান তার হাত ধরেই।

এদিকে অধিনায়কত্ব ছেড়েও আবার নেতৃত্বে ফেরার কারণ শুধু হাথুরুসিংহে নন সম্মিলিত সিদ্ধান্ত বলেই জানালেন ম্যাথুজ, ‘কোচ আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের প্রেসিডেন্ট ও নির্বাচকেরাও বলেছেন। আমরা সবাই মিলেই সম্মিলিত সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নেতৃত্বে ফিরে আমি খুশি। অবশ্যই প্রত্যশা করিনি। কিন্তু ফিরে ও চ্যালেঞ্জ নিতে পেরে আমি খুশি। তাকিয়ে আছি সামনে।’

আরটি/ক্যাট

 
.



আলোচিত সংবাদ