লারাকে টপকে গিয়ে দুঃখিত কুক!

ঢাকা, রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮ | ৯ বৈশাখ ১৪২৫

লারাকে টপকে গিয়ে দুঃখিত কুক!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭

print
লারাকে টপকে গিয়ে দুঃখিত কুক!

এই সেদিনও ভাবা হতো, ভারতের ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকারের বেশ অনেক রেকর্ডই ভেঙে রেখে যাবেন অ্যালিস্টার কুক। যেমনটা ভাঙছিলেন। ব্যাটে রানের ফুলঝুড়ি ফুটিয়ে দারুণভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলেনও। কিন্তু কি যে হলো, বছরখানেক ধরে কেমন বিবর্ণ সময় পার করছিলেন বাঁহাতি এই ইংলিশ ওপেনার। নিয়মিত রান পাচ্ছিলো না তার ব্যাট। এরপর তো ৫ ম্যাচের অ্যাশেজের তিনটিতে চরমভাবে ব্যর্থ। ইংল্যান্ড ৩-০ তে হেরে ছাইদানি হারাল। কুককে দল থেকে ছুড়ে ফেলার দাবিও করে বসলেন অনেকে। কিন্তু সেই কুকই মেলবোর্নে একের পর এক রেকর্ড ভাঙলেন। রেকর্ডের বরপুত্র ব্রায়ান লারাও ছাড় পেলেন না। কুকও বিনয়ের সাথে পরে বললেন, লারার জন্য দুঃখিত তিনি।

তার আগে জেনে নেওয়া যাক কদিন আগেও ইংল্যান্ডের অধিনায়ক থাকা কুকের ব্যর্থতার খতিয়ান। বক্সিং-ডে টেস্টের আগে টেস্টে সর্বশেষ সেঞ্চুরিটি করেছিলেন রাজকোটে, ভারতের বিপক্ষে, ২০১৬ সালের ৯ নভেম্বর। তারপর গত এক বছরে মেলবোর্নের চতুর্থ টেস্টের আগ পর্যন্ত ১৪টি টেস্ট খেলেছেন। ওই ১৪ টেস্টের ২৮ ইনিংসে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটি মাত্র দ্বিশতক ছাড়া উল্লেখ করার মতো কোন স্কোর নেই তার। নভেম্বরে শুরু হওয়া অ্যাশেজেও চলছিলো রানের খরা। ব্রিজবেন, অ্যাডিলেড ও পার্থের টেস্টে এই ওপেনার করলেন ২ ও ৭, ৩৭ ও ১৬, ৭ ও ১৪! ৬ ইনিংস মিলে ৮৩!

হোয়াইটওয়াশ এড়াতে অবশিষ্ট দুই ম্যাচে পরাজয় এড়ানো ছাড়া যখন আর কোন উপায় ছিলো না সফরকারীদের, তখনই দীর্ঘ এক বছরের খরা কাটিয়ে হেসে উঠলো অ্যালিস্টার কুকের ব্যাট। খেললেন ২৪৪ রানের হার না মানা এক ইনিংস। যাতে ইংল্যান্ড জয়ের স্বপ্নই দেখছিল। যদিও চতুর্থ দিনের বৃষ্টিতে এখন ড্রয়ের কথা ভাবতে হচ্ছে তাদের। তবু কুকই তো হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর জায়গাটা করে দিলেন!

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বক্সিং-ডের ম্যাচে বিশ্ব দেখলো ৩৩ বছর বয়সী এই ইংলিশম্যানের অসাধারণ ব্যাটিং। এক কথায় শৈল্পিক। আর এই এক ইনিংসেই ভেঙে গেল টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের অনেকগুলো রেকর্ড। এ ইনিংসের মধ্য দিয়ে টেস্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় কুক অতিক্রম করে গেছেন ক্রিকেটের রাজপুত্র ব্রায়ান লারাকে (১১৯৫৩)। ১১৯৫৬ রান নিয়ে টেস্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় কুকের অবস্থান এখন ৬ নম্বরে। তার আগে আছেন যথাক্রমে কুমারা সাঙ্গাকারা (১২৪০০), রাহুল দ্রাবিড় (১৩২৮৮), জ্যাক ক্যালিস (১৩২৮৯), রিকি পন্টিং (১৩৩৭৮) ও শচীন টেন্ডুলকার (১৫৯২১)। মেলবোর্নের ইনিংস খেলার পথেই কুক পেরিয়ে গেছেন শিবনারায়ণ চন্দপল (১১৮৬৭) ও মাহেলা জয়াবর্ধনেকে (১১৮১৪)।

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ২৪৪ রান তাকে আরেকটি বিরল মাইলফলকে পৌঁছে দিয়েছে। ৩৩ বছর আগে করা ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডের ২০৮ রানকে হটিয়ে কুকের ইনিংসটিই এখন এ গ্রাউন্ডে কোন সফরকারী ব্যাটসম্যানের করা সর্বোচ্চ ইনিংস। এছাড়া সফরকারী ব্যাটসম্যান হিসাবে অস্ট্রেলিয়ার পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ ভেন্যুর মধ্যে দুইটিতেই সর্বোচ্চ রান তার।

কুক তৃতীয় সফরকারী ব্যাটসম্যান, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে যার দুই বা তার বেশি ডাবল সেঞ্চুরি রয়েছে। মেলবোর্ন ছাড়াও ২০১০ সালে ব্রিজবেনে ২৩৫ রানের অপরাজিত একটি ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। এ তালিকায় বাকি দুই জনের একজন তার স্বদেশি ওয়ালি হ্যামন্ড, অন্যজন ব্রায়ান লারা। ২৪৪ রানের ইনিংসটি অ্যাশেজে ইংলিশদের পঞ্চম সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস।

বহু রেকর্ডে খচিত কুকের এই ইনিংসটি ২০১৭ সালে কোন ব্যাটসম্যানের খেলা সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। এ বছরে এটি তার দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। অন্যটি ১৭ আগস্ট বার্মিংহামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে করা ২৪৩। এবছর টেস্টে দুইটি করে ডাবল সেঞ্চুরি আছে শুধুমাত্র বিরাট কোহলি ও কুকের। এই বর্ণময় ইনিংসের মধ্য দিয়ে কুক ১১বারের মতো ১৫০ রানের ঘর স্পর্শ করেছেন। যেটা যেকোন ইংলিশ ব্যাটসম্যানের মধ্যে সর্বোচ্চ।

দলের এবং নিজের দুঃসময়ে ২৪৪ রানের এই স্বপ্নময় ইনিংসটি সিরিজে নিঃসন্দেহে ইংল্যান্ডের জন্য নতুন প্রেরণা তৈরি করবে। পাশাপাশি দীর্ঘ বিরতির পর কামব্যাক ইনিংসটি খেলতে পেরে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েছিলেন কুক। মেলবোর্নে তার অপরাজিত ২৪৪ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে ৪৯১ রানের বিশাল স্কোর দাঁড় করিয়েছে সফরকারীরা।

দলের দুঃসময়ে অবদান রাখতে পেরে আপ্লুত কুক মেলবোর্ন গ্রাউন্ডে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘গতকাল (বৃহস্পতিবার) বড় কিছু করতে পেরে খুবই আবেগাক্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। এটা দলের জন্য সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। গত ১২ বছর ধরে নিজের প্রতি সন্দেহ করে যাচ্ছি, সম্ভবত আরো করে যেতাম। দিনে দিনে এটা কঠিন হয়ে পড়ছিলো। কিন্তু আমার ধারণা এর জন্য আমি কিছুটা গর্বিত ... আমি আবার ভালো ফর্মে ফিরে এসেছি।’

তবে আরো আগে ফর্মে ফিরতে না পারার আক্ষেপও রয়েছে তার কথায়, ‘এটা খুবই লজ্জার যে, তিন-চার সপ্তাহ দেরিতে ফর্মে ফিরেছি। দীর্ঘদিন এটা আমাকে বয়ে বেড়াতে হবে। কিন্তু ভালো লাগছে যে আবার রান করছি।’

টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিয়কায় ব্রায়ান লারাকে পেছনে ফেলার অনুভূতি জানাতে গিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে ১১৯৫৬ রানের মালিক অ্যালিস্টার কুক বলেন, ‘আমি এটা ব্যাখ্যা করতে পারবো না। আমি শুধু ব্রায়ান লারার জন্য দুঃখিত। এটা একটা বিশেষ মুহূর্ত যখন ওই উচ্চতায় আপনি আপনার নাম দেখবেন।’

অলিস্টার কুকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইক অ্যাথারটনও। সাবেক ব্যাটসম্যান বলেছেন, ‘কুক ইংল্যান্ডের সমস্ত রেকর্ড ভাঙতে যাচ্ছে। সে অবিশ্বাস্য এক খেলোয়াড়। সে তার জাতের সর্বশেষ ব্যাটসম্যান। বর্তমান সময়ে তার মতো আর খুব বেশি খেলোয়াড় নেই।’

পিএ/ক্যাট

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad