রনকির কারণেই রান পাচ্ছেন না সৌম্য!

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫

বিপিএল ২০১৭

রনকির কারণেই রান পাচ্ছেন না সৌম্য!

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৫:১৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০১, ২০১৭

print
রনকির কারণেই রান পাচ্ছেন না সৌম্য!

এক প্রান্তে তোপ দাগিয়ে যাচ্ছেন অধিনায়ক লুক রনকি। কিন্তু অপর প্রান্তে নীরবে দেখা ছাড়া আর কিছুই করতে পারছেন না সৌম্য সরকার। চিটাগং ভাইকিংসের প্রায় প্রতি ম্যাচের চিত্রই এটা। তাই উল্টো চাপে পরে যাচ্ছেন দলটির আইকন খেলোয়াড় সৌম্য। কোন রাগঢাক না রেখে নিজেই স্বীকার করলেন এ কথা। তবে এমন আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের ইচ্ছেটা আছে মনে সুপ্ত অবস্থায়। আছে বড় রান করার তাগিদ। আর তাই এ কিউই ব্যাটসম্যানের কাছ থেকে শিখেও নেওয়ার চেষ্টায় আছেন সৌম্য।

শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমী মাঠে অনুশীলন করতে আসে চিটাগং। সেখানেই নিজের চাপের কথা জানালেন সৌম্য, ‘আমার মনে হয় ওর (লুক রনকি) জন্যই আমার চাপটা বেশি বাড়ছে। ও যেভাবে ব্যাটিং করে বুঝতে পারি না, ব্যাটিং উইকেট নাকি বোলিং উইকেট। আমার ২ রান, ওর দেখি ৩০-৪০ রান হয়ে যায়। তখন চিন্তার বিষয় থাকে, আমারও কিছু করতে হবে। দুইটা বল ডট গেলে মনে হয় আসলে ব্যাটিং উইকেট। আমিই হযতো মারতে পারছি না।’

তবে এমন চাপের ইতিবাচক দিকও দেখছেন সৌম্য। এতে নিজে কিছুটা হলে বেশি সময় নিতে পারছেন বলে জানান তিনি। পাশাপাশি রনকির ব্যাটিং দেখে অনেক কিছু শিখে নিচ্ছেন বলে জানান এ ড্যাশিং ব্যাটসম্যান। সৌম্যর ভাষায়, ‘পার্টনার রান করলে দুইটা বল ডট যাওয়ার পরও চিন্তা করার সুযোগ থাকে। ওর ব্যাটিং থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। সে সিনিয়র খেলোয়াড় তার কাছ থেকে অনেক কিছু নেওয়ার আছে। আমি চেষ্টা করছি সেসব নেওয়ার।’

এবারের আসরে ৪টি ম্যাচে ৩০ কিংবা তার অধিক রান পেয়েছেন সৌম্য। তবে এরপরও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি তিনি। আর এ নিয়ে নিজেও আক্ষেপে পুড়ছেন এ ড্যাসিং ব্যাটসম্যান, ‘আসলে ৩০ করে তো চার-পাঁচটাতে আউট হলাম। তো ওইগুলা বড় করতে পারলে সবাই বলত সৌম্য রান করছে। ৩০-৪০ এ তো হয় না। নিজের কাছেও খারাপ লাগে যে নিয়মিত ৩০-৪০ এ আউট হচ্ছি। বেরনো উচিত, কেন পারছি না আসলে জানি না। তারপরও চেষ্টা থাকবে অবশ্যই এখান থেকে বেরনোর। আর এগুলো বড় করতে পারলে নিজের জন্যও ভাল হতো, বিপিএলটাও ভাল হতো।’ বিপিএল শেষের পথে বলেও চেষ্টা চালিয়ে যাবেন সৌম্য, ‘এখনও দুইটা ম্যাচ আছে। যদি ৩০-৪০ এ যেতে পারি তাহলে চেষ্টা করব শেষ করার, যতটুকু সম্ভব।’

১০ ম্যাচে মাত্র ৫ পয়েন্ট চিটাগংয়ের। অলৌকিক কিছু না হলে বিদায় নিশ্চিত দলটির। তবে শেষ দুই ম্যাচেও জয়ের লক্ষ্যেই খেলবেন বলে জানান সৌম্য, ‘দুইটা ম্যাচ জেতার চেয়ে চারটা ম্যাচ জেতা ভাল। এখান আশা থাকবে দুইটা নয়, চারটা জিতে শেষ করার। যদি শেষ দুইটা জিততে পারি নিজেদের কাছে ভাল লাগবে।’

আরটি/টিএআর

 
.




আলোচিত সংবাদ