'বডি লাইন' এর প্রতিশোধ নেওয়ার ডাক দিলেন ওয়ার্ন!

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

অ্যাশেজ ২০১৭-১৮

'বডি লাইন' এর প্রতিশোধ নেওয়ার ডাক দিলেন ওয়ার্ন!

তোফায়েল আহমেদ ৭:৩১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৭

print
'বডি লাইন' এর প্রতিশোধ নেওয়ার ডাক দিলেন ওয়ার্ন!

অ্যাশেজ শুরুর আগে উত্তাপ নেই, এমন কবে ঘটেছে? বরং অ্যাশেজের আগে চারদিক নিরুত্তাপের বার্তা দিলে সেটি হবে পৃথিবীর অস্বাভাবিক ঘটনার একটি। বৃহস্পতিবার ব্রিজবেনের গ্যাবায় শুরু হচ্ছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মধ্যে অ্যাশেজ লড়াই। আর সেটিকে ঘিরে বেশ আগে থেকেই কথার মনস্তাত্বিক লড়াই চলছে। তবে প্রথম টেস্ট শুরুর আগে যখন মাত্র ঘন্টা কয়েক বাকি তখন দুই দলকে বেশি ভাবতে হচ্ছে মাঠের কৌশল নিয়ে। তা টিম মিটিংয়ে প্রতিপক্ষকে আটকাতে কি পরিকল্পনা নিলেন স্টিভেন স্মিথ?

.

স্মিথের পরিকল্পনার ভাণ্ডারে কি আছে সেটি তিনি আর তার টিমমেটরাই সবচেয়ে ভালো বলতে পারবেন। তবে অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি সাবেক লেগ স্পিনার শেন ওয়ার্নার কিন্তু 'বডি লাইন থিওরি' ফিরিয়ে আনতে বলছেন গ্যাবায়। অজি পেসারদের জন্য তার বার্তা, ৮৫ বছর আগের স্মৃতি ফিরিয়ে আনুন মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজলউড, প্যাট কামিন্সরা। তারা প্রতিশোধ নিক সেই ঘরের মাঠেই। শরীর তাক করে শর্ট বলে গুঁড়িয়ে দিক ইংলিশদের। ছিনিয়ে আনুক হারানো ছাইদানিটা।

১৯৩২-৩৩ এর অ্যাশেজে স্যার ডন ব্র্যাডম্যানকে আটকাতে বডি লাইন থিওরি বা লেগ থিওরি আবিস্কার করেছিলেন ইংল্যান্ডের তখনকার অধিনায়ক ডগলাস জার্ডিন। মহা বিতর্কিত সেই থিওরিতেই স্বাগতিকদের বিদ্ধস্ত করে ইংল্যান্ড অ্যাশেজ জিতে ফিরেছিল অস্ট্রেলিয়া থেকে। ওয়ার্ন অবশ্য সেটির প্রতিশোধ বা এ জাতীয় কোন শব্দ ব্যবহার করছেন না। বরং অ্যাশেজ উপলক্ষে লেখা তার কলামে স্টার্ক-কামিন্সদের বতলে দিয়েছেন সাফল্যের মন্ত্র- ‘বডিলাইন থিওরিটা প্রয়োগ করো।’ এই কথার মানে কি? বুঝতে কি আর বাকি থাকে কিছু?

মিশেল স্টার্ক, জস হ্যাজলউল, প্যাট কামিন্সদের নিয়ে গড়া অস্ট্রেলিয়ার ফাস্ট বোলিং আক্রমণকে বলা হয় বিশ্বের অন্যতম সেরা পেস ব্যাটারি। ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের স্টার্ক-কামিন্সদের গতি দিয়ে ঘায়েল করতে বলছেন ওয়ার্ন। আর সেটা লেগ থিওরি দিয়ে। অন্তত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরু প্রথম টেস্ট দিয়েই। ‘স্টিভ স্মিথ এবং তার ফাস্ট বোলিং ত্রয়ীর সামনে সুযোগ শুরুতেই তাদের (ইংলিশদের) ব্যাকফুটে ফেলে দেওয়ার। এবং পুরো সিরিজে সেটি ধরে রাখা।’ ইতিহাসের পাতা থেকে লেগ থিওরি টেনে এনে ওয়ার্ন বুধবার বলেছেন, ‘৮৫ বছর আগে ইংল্যান্ডের খুবই চতুর অধিনায়ক ডগলাস জার্ডিন তার দুই গতি তারকা হ্যারল্ড লারউড ও বিল ভোসকে ব্যবহার করে অস্ট্রেলিয়া দলকে ঘায়েল করেছিল। আমি মনে অজি টিম সেই একই ভাবে জো রুটের দলকে ঘায়েল করতে পারে।’

৮৫ বছর আগে অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের সামনে বড় হুমকি ছিলেন ইতিহাসের সেরা ব্যাটসম্যান স্যার ডন ব্র্যাডম্যান। ১৯৩০ এর অ্যাশেজে একাই গুড়িয়ে দেন ইংল্যান্ডকে। দুই বছর পর যখন ফের অ্যাশেজ লড়াই তখন ব্র্যাডমানকে থামাতেই ফার্স্ট লেগ থিওরির আবিস্কার করে ইংল্যান্ড। আগের সিরিজে লেগ স্টাম্পের উপর লাফানো বল খেলতে কষ্ট হয়েছিল ব্র্যাডম্যানের। ১৯৩২ এর অ্যাশেজে তাই তার দুর্বলতা বের করেই লেগ থিওরি। কিন্তু খনি শ্রমিক লারউড আর বিল ভোস যে হারে শরীর বরাবর বোলিং করে গেছেন, লেগ সাইডে ফিল্ডিং সাজিয়ে, অস্ট্রেলিয়ায় তা 'বডি লাইন' হিসেবে পরিচিত পায়। বিষয়টা কুখ্যাত। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের কাউকে কাউকে রক্তাক্ত হয়ে হাসপাতালে যেতে হয়েছিল। জীবন শঙ্কাতেও পড়েছিলেন কেউ।

সেই বডিলাইন বোলিং অবশ্য ক্রিকেটের বিধান থেকেই বাদ দেওয়া হয়েছে। এখন ব্যাটসম্যানরাও অনেক বেশি সুরক্ষিত থাকেন উইকেটে। সেই সময় হেলমেট বা কিছু কিছু বডি গার্ডই ছিল না ব্যাটসম্যানদের। তবে এবারের অ্যাশেজ জিততে অজি পেসারদের ওয়ার্ন বলে দিচ্ছেন প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কোন রকম করুণা না দেখাতে, ‘ইংল্যান্ডের মিডল অর্ডার ও লোয়ার অর্ডার অপ্রতিরোদ্ধ নয়। বডিলাইন থিওরি সেখানে দারুণ কাজ করবে। জনি বেয়ারস্টো, মঈন আলি, ক্রিস ওকসকে শট বল নির্ঘাত প্রশ্নের মুখে ফেলবে। কোন ক্ষেত্রেই করুণা দেখানো উচিত হবে না।’

অস্ট্রেলিয়া অনুষ্ঠিত সর্বশেষ অ্যাশেজে আগুন ঝরিয়েছিলেন মিচেল জনসন। ৩৭ উইকেটে নিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন ইংল্যান্ডকে। এবার প্যাট কামিন্সকে ওয়ার্ন যেন আলাদা করেই বলছেন সেবারের জনসন হতে, ‘গ্যাবা সবসময়ই প্রতিপক্ষের জন্য ভীতিকর জায়গা। বিশেষ করে ইংল্যান্ডের জন্য। যারা ১৯৮৬ সালের পর এখানে জয় পায়নি। চার বছর আগে মিচেল জনসন এখানে যা করে দেখিয়েছে, প্যাট কামিন্স ঠিক তেমনই হুমকি হতে পারে।’

৮৫ বছর আগে ওই বডি লাইন সিরিজ দুই দেশের মধ্যে কুটনৈতিক সম্পর্কই ভেঙে দিতে বসেছিল। স্মিথরা কি ওয়ার্নের কথা শুনবেন? ঘটাবেন ঘটনা? নিতে চাইবেন লেগ থিওরির প্রতিশোধ? অনেক প্রশ্ন। কিন্তু জবাবটা 'হ্যাঁ' হলে এবারের অ্যাশেজ ছাড়িয়ে যাবে হয়তো ইংল্যান্ডের আবিষ্কার সেই বডি লাইনের সিরিজকেও!

টিএআর/ক্যাট

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad