স্মিথ-ওয়ার্নারদের ঠেকাতে তৈরি শফিউল

ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

স্মিথ-ওয়ার্নারদের ঠেকাতে তৈরি শফিউল

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:৪৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০১৭

print
স্মিথ-ওয়ার্নারদের ঠেকাতে তৈরি শফিউল

বর্তমানে পৃথিবীর বিধ্বংসী ওপেনার ভাবা হয় অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নারকে। আর তার সতীর্থ অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ অনেক দিন থেকেই টেস্ট ক্রিকেটে সেরা ব্যাটসম্যানের জায়গাটা ধরে রেখেছেন। এছাড়াও দলের বাকি খেলোয়াড়দের বেশ কয়েকজন একাই ঘুরিয়ে দিতে পারেন ম্যাচ। এমন দুর্ধর্ষ ব্যাটিং লাইন আপের বিপক্ষে অনেকটাই অনভিজ্ঞ বাংলাদেশের বোলাররা। বিশেষ করে পেস বোলিং ইউনিট তরুণদের নিয়ে গড়া। বর্তমান দলে থাকা একমাত্র শফিউল ইসলামই পুরোনো যোদ্ধা। এখনো নিশ্চিত না টেস্টে তার খেলা হবে কি না। কিন্তু অভিজ্ঞ শফিউল ঠিকই নিজেকে তৈরি করে রাখছেন অসিদের ধসিয়ে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়ে।

.

সাম্প্রতিক সময়ে দারুণ ছন্দে আছেন শফিউল। চট্টগ্রামে প্রস্তুতি ম্যাচেও খেলেছেন দুর্দান্ত। এছাড়াও দলের পেসারদের মধ্যে টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা তারই বেশি। সব মিলিয়ে ক্রিকেট খেলার বয়সও বেশি তার। যেখানে মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, কামরুল ইসলাম রাব্বিরা বেশ নবীন। তাই দায়িত্বটা নিতে চাচ্ছেন শফিউল। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের শক্তির কথা জানেন তিনি। তবে তাদের বিপক্ষে লড়াই করতে প্রস্তুত বলে জানান এ পেসার, ‘ভালো বল যে কোনো ব্যাটসম্যানের জন্যই ভালো বল। স্মিথ কিংবা ওয়ার্নারসহ যারাই আছে তাদের বিপক্ষে আমাদের পেসাররা লড়াই করতে প্রস্তুত।’

তবে উপমহাদেশের উইকেট বরাবরই স্পিনারদের সহায়তা করে থাকে। পেসারদের জন্য এ ধরণের উইকেটে কাজটা কঠিনই হয়ে যায়। তবে সঠিক লাইন ও লেন্থে বোলিং করতে পারলে এমন উইকেটেও ভালো করা সম্ভব বলে মনে করেন শফিউল, ‘আমাদের দেশে টেস্টে স্পিনাররাই বেশি কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। সেই তুলনায় আমরা পেসাররা সেভাবে বেক থ্রু এনে দিতে পারি না। অবশ্যই ওই জায়গাটায় উন্নতি করার বিষয় রয়েছে। শুরু থেকেই পেসারদের আক্রমণাত্মক হতে হবে। আমাদের জোরে বল করার মতো বোলার আছে। বোলারদের মধ্যে বৈচিত্র্য রয়েছে। আমরা যদি জায়গা মতো বল করতে পারি তাহলে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট তুলে নেওয়ার সুযোগ তৈরি হবে।’

গত অক্টোবরেই মিরপুরের মাঠে ইংল্যান্ডকে টেস্টে প্রথমবারের মতো হারিয়েছে টাইগাররা। সেবার স্পিন সহায়ক উইকেট তৈরি করেছিল বাংলাদেশ। টাইগারদের সে স্মৃতি এখনও তরতাজা। নবীন স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের সাথে অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসানের স্পিনবিষেই শেষ হয় ইংলিশদের ইনিংসরা। তাই এ সিরিজেও এমন উইকেট পাওয়ার সম্ভবনা বেশি। সেটা জানেন বলেই স্পিনারদের পেছন থেকে সহায়তা দেওয়ার প্রস্তুতিও নিয়ে রাখছেন শফিউলরা, ‘উইকেট যেমনই হোক পেসারদের দায়িত্ব নিয়েই খেলতে হবে। যদি স্পিন সহায়ক হয় তাহলে চেষ্টা করতে হবে স্পিনারদের সাহায্য করতে। নতুন বলে ব্রেক থ্রু এনে দিতে পারলে স্পিনারদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যাবে। আর যদি পেস সহায়ক উইকেট হয় তাহলে চেষ্টা পেসারদের দায়িত্ব নিয়ে বোলিং করতে হবে।’

সময়টা ভালো গেলেও কিছু দুশ্চিন্তা কাজ করছে শফিউলের মনে। ছন্দে থাকা অবস্থায় প্রায়ই ইনজুরির কারণে ছিটকে পড়েন পেসার। তাই ইনজুরি থেকে দূরে থাকার জন্য সতর্ক হয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন বলে জানান তিনি। আর সম্পূর্ণ ফিট থেকে খেলার সুযোগ পেলে ভালো কিছু করার প্রত্যয় তার।

আরটি/ক্যাট

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad