অর্জুন টেন্ডুলকারের বোলিং টানছে ম্যাকগ্রাকে

ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

অর্জুন টেন্ডুলকারের বোলিং টানছে ম্যাকগ্রাকে

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:১৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০১৭

print
অর্জুন টেন্ডুলকারের বোলিং টানছে ম্যাকগ্রাকে

শচীন টেন্ডুলকারের সঙ্গে তার দ্বৈরথটা ছিল কিংবদন্তিতূল্য। টেন্ডুলকারের মুখোমুখি হলেই বাউন্সার, ইয়র্কার ছুঁড়ে বিপর্যস্ত করতে চাইতেন ম্যাকগ্রা। সঙ্গে সমানতলে চলত তার মুখ। নানা কথায় উত্তপ্ত করতেন টেন্ডুলকারকে। যেন মাথা গরম করে তেড়েফুড়ে মারতে গিয়ে টেন্ডুলকার উইকেট দিয়ে বসেন! কিন্তু এতোসব করেও খুব সুবিধা করতে পারতেন না ম্যাকগ্রা। ভারতীয় মাস্টার ব্ল্যাস্টারের সঙ্গে ব্যক্তিগত দ্বৈরথে বেশীর ভাগ সময়ই হার মানতে হতো তাকে। সেই ম্যাকগ্রা এখন আকুল হয়ে অপেক্ষা করছেন টেন্ডুলকারের ছেলে অর্জুন টেন্ডুলকারের বোলিং দেখার জন্য।

.

ক্যারিয়ারের শুরু দিকে ফাস্ট বোলারই হতে চেয়েছিলেন টেন্ডুলকার। কিন্তু শারীরিক আকৃতি আর ঈশ্বর প্রদত্ত প্রতিভা বোলার হওয়ার স্বপ্নকে জলাঞ্জলি দিয়ে শচীন টেন্ডুলকার বনে যান ইতিহাসখ্যাত ব্যাটসম্যান। কিন্তু তার ছেলে অর্জুন টেন্ডুলকার ফাস্ট বোলারই হচ্ছেন। পাক্কা ৬ ফুট উচ্চতার অর্জুন এরই মধ্যে নিজের বোলিং দক্ষতা দিয়ে আলোচনায় উঠে এসেছেন।

কদিন আগেই মাত্র এক বলে ইংল্যান্ডের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোকে আহত করে ফেরত পাঠান প্যাভিলিয়নে। সম্প্রতি ভারতের নারী ক্রিকেট দলের অনুশীলনেও নেটে বোলিং করেছেন টেন্ডুলকার তনয়। তার ১৭ বছর বয়সী সেই ফাস্ট বোলার ছেলের বোলিং দেখার খুব ইচ্ছা ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার ম্যাকগ্রার।

পেস বোলিং ফাউন্ডেশনের কোচ হিসেবে ম্যাকগ্রা অনেক দিন ধরেই ভারতের তরুণ উদীয়মান বোলারদের কোচিং করাচ্ছেঁন। পেস বোলিয় ফাউন্ডেশনে অর্জুন টেন্ডুলকারকে একবার দেখেছিলেনও তিনি। বাবা শচীন টেন্ডুলকারের সঙ্গে এসেছিলেন অর্জুন। কিন্তু বয়স অনেক কম ছিল। অর্জুন বোলিং করাটা তখনো শুরু করেননি। তবে এখন যখন চারদিকে অর্জুনের নানা প্রশংসা শুনছেন, এক সময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী টেন্ডুলকারের ছেলের বোলিং দেখতে তার তর সইছে না।

মঙ্গলবার ভারতীয় সাংবাদিকদের নিজের সেই আগ্রহের কথা জানিয়েও দিয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটে ফাস্ট বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী (৫৬৩টি) ম্যাকগ্রা, ‘শচীনের (টেন্ডুলকার) ছেলে? তার বয়স এখন ১৭? ঠিক আমার ছেলের সমবয়সী। আমি ওকে একবার দেখেছি। কিন্তু কখনো বোলিং করতে দেখিনি। ওর বোলিং দেখার খুব ইচ্ছা।’

শারীরিক আকৃতিই অর্জুনকে আদর্শ ফাস্ট বোলার হিসেবে গড়ে তুলবে বলেই বিশ্বাস ম্যাকগ্রার, ‘শচীন ফাস্ট বোলার হতে চেয়েছিল। তার ছেলে শচীনের চেয়ে অনেক লম্বা। এটা ওকে খুব সাহায্য করবে।’ শচীন টেন্ডুলকারের বিপক্ষে বোলিং করতে ভালোবাসতেন জানিয়ে ম্যাকগ্রা বলেছেন, ‘শচীনের বিপক্ষে বোলিং করার সময় আমি কঠোর পরিশ্রম করেছি এবং উপভোগ করেছি। ব্রায়ান লারা, রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গাঙুলি, ভিভিএস লক্ষ্মণদের বিপক্ষে বোলিং করতেও আমি সবসময় উপভোগ করেছি। তবে শচীনের বিপক্ষে বোলিং করার চ্যালেঞ্জটাকে আমি সত্যিই ভালোবাসতাম। কারণ সর্বকালের সেরা যদি নাও হয়, সে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। রেকর্ডই তার হয়ে কথা বলে।’

কেআর

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad