মিরাজ না পারলেই মোসাদ্দেক

ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ | ৮ আষাঢ় ১৪২৫

মিরাজ না পারলেই মোসাদ্দেক

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:৩৫ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০১৮

print
মিরাজ না পারলেই মোসাদ্দেক

গত এক বছর থেকে দলের বাইরে। জাতীয় দলের হয়ে টি-টুয়েন্টি খেলেছেন তাও দুই বছর আগে। মাঝে ঘরোয়া ক্রিকেটেও খুব আহামরি কোন পারফর্ম করতে পারেননি মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তারপরও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজের দলে আছেন এ তরুণ। মূলত ইনজুরিতে থাকা মেহেদী হাসান মিরাজের বিকল্প হিসেবেই তাকে রাখা হয়েছে বলে জানালেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। মিরাজ খেলতে না পারলে অল রাউন্ডার হিসেবেই মোসাদ্দেক একাদশে থাকবেন বলে জানালেন প্রধান নির্বাচক।

ভারতের দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জুনে টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলবে টাইগাররা। এ সিরিজকে সামনে রেখে রোববার ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। সেখানে মোসাদ্দেককে রাখার ব্যাখ্যায় নান্নু বললেন, ‘অল রাউন্ডারের চিন্তা থেকেই মোসাদ্দেককে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কারণ, মিরাজের ফিটনেস নিয়ে কিছুটা সংশয় আছে আমাদের। এখন পর্যন্ত যতখানি আছে, শতভাগ ফিট নয়। ধীরে ধীরে তার অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। সেই হিসেবে মিরাজের ব্যাক আপ হিসেবে মোসাদ্দেক হোসেনকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। ’

চলতি বছরে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়েছেন মোসাদ্দেক। তারপর তাকে দলে নেওয়ার যুক্তিটা নান্নু দিলেন এভাবেই, ‘ওটা (কেন্দ্রীয় চুক্তি) অন্য জিনিস। আমরা মনে করছি টি-টোয়েন্টিতে বল করার যথেষ্ট স্কিল আছে মোসাদ্দেকের। ও যথেষ্ট প্রতিভাবান আমরা জানি। মাঝখানে একটু ছন্দপতন হয়েছিল। এই মুহূর্তে ফিটনেসসহ যাবতীয় বিষয়গুলো দেখে এবং টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে আলাপ করে আমরা তাকে নির্বাচন করেছি। ’

একজন অল রাউন্ডারের কথা বিবেচনা করেই দলে নেওয়া হয়েছে মোসাদ্দেককে। তবে সে বিবেচনায় ঠাঁই হয়নি পেস অলরাউন্ডার সাইফ উদ্দিনের। মূলত তার পারফরম্যান্সে খুশি না হওয়ার কারণেই তাকে বিবেচনা করা হয়নি বলে জানালেন আরেক নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন, ‘সাইফউদ্দিনের পারফরম্যান্সে আমরা খুশি ছিলাম না। আমাদের মাথায় দুইজন বোলিং অল রাউন্ডার ছিল, একজন রাজু (আবুল হাসান), আরেকজন সাইফ উদ্দিন। কিন্তু দুইজনের কাছ থেকেই প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স পাইনি। যদিও তারা আমাদের চিন্তার বাইরে চলে যায়নি, সামনে আমাদের এ দলের খেলা আছে, সেখানে আমরা তাদের দেখতে চাই। আসলে তারা কেমন করে। আমাদের হাতে সময় খুবে বেশি নেই। আমরা অনেকদিন ধরেই ওই জায়গাতে অভাব অনুভব করছি।’

আরটি/ক্যাট

 
.




আলোচিত সংবাদ