রিজার্ভ ডে না রাখার ব্যাখ্যা দিল আইসিসি
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০ | ১৯ আষাঢ় ১৪২৭

রিজার্ভ ডে না রাখার ব্যাখ্যা দিল আইসিসি

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৫৪ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

রিজার্ভ ডে না রাখার ব্যাখ্যা দিল আইসিসি

মঙ্গলবার বৃষ্টির কারণে ভেস্তে গেল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি। বৃষ্টির কারণে টস পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়নি। ফলে ভাগাভাগিতে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে দুই দলকে।

এমন পরিস্থিতিতে হতাশা ব্যক্ত করেছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। শুধু কালকের ম্যাচ নয়, আগের দিন সাউদাম্পটনে দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচটিও ভাসিয়ে দিয়েছিল বৃষ্টি। এর আগে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ম্যাচও একই কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল।

অর্থাৎ বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ১৬ ম্যাচের মধ্যে ৩টিই বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে। যা একটি রেকর্ডও। এর আগে সবচেয়ে বেশি (দুইটি করে) ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে ১৯৯২ ও ২০০৩ বিশ্বকাপে। ইংল্যান্ডে আবহাওয়ার যে অবস্থা, তাতে সামনে আরো কয়েকটি ম্যাচে বৃষ্টি হানা দিতে পারে।

এমন পরিস্থিতিতে দারুণ বিরক্ত দর্শকরা। প্রশ্ন উঠেছে, কেন রাখা হয়নি রিজার্ভ ডে। গতকাল বাংলাদেশের কোচ স্টিভ রোডস খোঁচাই দিলেন আয়োজকদের। বললেন, ‘আমরা চাঁদে লোক পাঠাতে পারি, কেন রিজার্ভ ডে রাখতে পারি না, যখন টুর্নামেন্টটা এত লম্বা।’

প্রশ্ন উঠেছে, ইংল্যান্ডের আবহাওয়া সম্পর্কে কি জানত না আইসিসি? তবে কেন এত লম্বা টুর্নামেন্টে রিজার্ভ ডে রাখা হয়নি। এত সমালোচনায় টনক নড়েছে আইসিসির। রিজার্ভ ডে না রাখার ব্যাখ্যা দিয়েছে তারা।

নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন বলেছেন, ‘সব ম্যাচে রিজার্ভ ডে রাখলে টুর্নামেন্টের দৈর্ঘ্য অনেক বেড়ে যাবে। তখন পুরো টুর্নামেন্টটা সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করা একরকম অসম্ভব হয়ে পড়বে।’

তিনি আরো বলেছেন, ‘পিচ প্রস্তুত করা, দলগুলোর যাত্রার সময়সূচি ও বিশ্রামের রুটিন, থাকার জায়গা, ভেন্যু ঠিক দিনে পাওয়া যাবে কি না, স্বেচ্ছাসেবক ও ম্যাচ অফিশিয়ালদের প্রাপ্যতা ও উপস্থিতি, সরাসরি সম্প্রচারে সমস্যা হবে কি না— এসব কিছুর ওপর প্রভাব পড়বে তখন। এছাড়া যেদিন রিজার্ভ ডে রাখা হবে, সেদিনও যে বৃষ্টি হবে না, তারও তো কোনো নিশ্চয়তা নেই।’

পিএ

 

: আরও পড়ুন

আরও