টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক পাচারকারী নিহত

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক পাচারকারী নিহত

টেকনাফ প্রতিনিধি ১২:১১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২০

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক পাচারকারী নিহত

টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক পাচারকারী নিহত হয়েছেন। এতে দুই বিজিবি সদস্য আহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোররাতে উপজেলার হ্নীলা ইউপির জাদিমুরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে, নিহত ব্যক্তি হলেন মিয়ানমার নাগরিক ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান।

বিজিবির দাবি, ঘটনাস্থল থেকে ৩ কোটি, ৯০ লক্ষ টাকা মুল্যমানের ১ লাখ, ৩০ হাজার ইয়াবা, দেশীয় ১টি এলজি অস্ত্র ও ১টি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান বলেন, জাদিমুরা এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান আসছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির টহল দল অভিযানে যায়। এমন সময় নাফ নদীর কেওড়া বাগানের ভিতর থেকে নৌকা যোগে বেশ কয়েক জন লোক বাংলাদেশ সীমানা অতিক্রম করতে দেখা যায়।

এ সময় বিজিবি তাদের চ্যালেঞ্জ করলে নৌকাতে থাকা মাদক পাচারকারী বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে এলোপাতারি গুলি বর্ষণ শুরু করে। এতে বিজিবির ২ সদস্য আহত হয়। এর পর আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলি চালায়।

এক পর্যায়ে নৌকায় থাকা ৩/৪ জন মাদক পাচারকারী সু-কৌশলে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে পালিয়ে যায়। গোলাগুলি থামানোর কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক যুবককে উদ্ধার হয়। তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশে তৈরি বন্দুক, এক রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও খালি খোসা উদ্ধার করা হয়। আহত বিজিবির ২ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

২০১৮ সালের ৪ মে থেকে সারা দেশে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হলে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি অভিযান এবং মাদক ব্যবসায়ীদের প্রভাব বিস্তার এবং অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে এ পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় ৪ নারীসহ ২০৭ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ২ নারীসহ ৬১ জন রোহিঙ্গা নাগরিকও রয়েছে।

জেএম/আরপি

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও