পা ভাঙা সেলিমকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫

পা ভাঙা সেলিমকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি ৯:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৮

print
পা ভাঙা সেলিমকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

মো. সেলিম (৪৫), পেশায় একজন দিনমজুর। সেলিম রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার বরইছড়ি এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে তিনি। মাস দুয়েক আগে উপজেলার অফিসার্স ক্লাবের ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে বাম পা ভেঙে যায় তার। এরপর তিনি দীর্ঘ দুইমাস কাটিয়েছেন ঘরবন্দি হয়ে। পা ভাঙার পর স্থানীয় কবিরাজ দিয়ে ‘ঝাড়ফুঁক’ও করেছেন দীর্ঘদিন। কিন্তু তাতেও সুস্থ হননি সেলিম। অবশেষে চিকিৎসার খরচের জন্য আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নিকট।

পরে তাৎক্ষণিক খোঁজখবর নিয়ে পা ভাঙা সেলিমকে কাপ্তাই খ্রীষ্টিয়ান হাসপাতালে (মিশন হাসপাতাল) ভর্তি করালেন ইউএনও। এমনকি অসুস্থ সেলিমের চিকিৎসার সকল ব্যয় বহন করে তাকে সুস্থ করে তুলবেন বলেও পরিবারকে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে কাপ্তাই উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিন পরির্তন ডটকমকে জানান, পা ভাঙা সেলিম গত মাস দুয়েক আগে দুর্ঘটনা শিকার হয়ে উপজেলার অফিসার্স ক্লাবের ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে বাম পা ভেঙে ফেলেন। এরপর বাসায় তিনি স্থানীয় কবিরাজের মাধ্যমে ঝাড়ফুঁক করান। গত মঙ্গলবার বিকেলে পরিবারের মাধ্যমে আমার কাছে সহায়তা চান। পরে আমি খোঁজখবর নিয়ে বুধবার দুপুরের দিকে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেই।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘এখন তার বাম পায়ে ব্যান্ডেজ করা হয়েছে। আগামী চার থেকে পাঁচ মাসের মধ্যেই তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে যাবেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে ইউএনও রুহুল আমিন বলেন, ‘তাদের সহায়তা দিলে দেখা যায় যে, পারিবারিক সংকটের কারণে অনেকেই টাকা খরচ করে ফেলেন। কিন্তু তখন চিকিৎসাও ঠিকমতো করা হয় না। তাই আমি তাকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দিয়েছে। তার সুস্থতার জন্য যা খরচ হবে, তা আমি ব্যবস্থা করে দিবো বলে পরিবারকে জানিয়েছে।

পিআর/এসএফ

 
.



আলোচিত সংবাদ