দিয়াজ হত্যার আসামি চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে এবার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

ঢাকা, বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

দিয়াজ হত্যার আসামি চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে এবার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

জামালুদ্দিন হাওলাদার, চট্টগ্রাম ৫:৪৯ অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০১৮

print
দিয়াজ হত্যার আসামি চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে এবার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আবু সালেহ মো. নোমানের আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়।

নিজেকে ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে পরিচয় দিয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন আসাদুজ্জামান তানভীর নামে এক যুবক।

আদালত মামলাটি গ্রহণ করে সিএমপি চকবাজার থানার অফিসারকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। বাদির আইন কর্মকর্তা আজহারুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আজহারুল হক জানান, বিবাদি চবি সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধি ১২৩ (ক), ১২৪ (ক), ১৭৭, ৫০০, ৫০১, ৫০২ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

আদালতে মামলাটি দায়েরের সময় চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবী শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী শুনানিতে অংশ নেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলায় বাদি উল্লেখ করেছেন- চলতি মাসের ৬ মে নগরীর চকবাজার এলাকায় হোটেল জামানের সামনে ভাসমান পত্রিকা বিক্রেতার কাছে একটি দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকা কিনেন বাদি। ওই পত্রিকার শেষ পাতায়, ‘মুক্তিযুদ্ধ হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা, বিতর্কিত চবি শিক্ষক আনোয়ারের গবেষণায় বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তি’ শিরোনামে বাদি একটি সংবাদ দেখতে পান।

ওই সংবাদের একপর্যায়ে বলা হয়, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধকে হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বলে তার পক্ষে কোনো দলিল বা রেফারেন্স তুলে ধরেননি তিনি। একই লেখায় ‘বঙ্গবন্ধু ও তার ঘনিষ্ঠ সহযোদ্ধারা ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলের সাম্প্রদায়িক রাজনীতির ফসল’ বলে উল্লেখ করেছেন লেখক।

তার প্রবন্ধে আরো লেখা হয়, এক সময়ের নিরপেক্ষ দল বর্তমান আওয়ামী লীগ সাম্প্রদায়িক দলে পরিণত হয়েছে। এর অংশ হিসেবে তিনি বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কক্সবাজারের রামুতে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলার সঙ্গে সরাসরি আওয়ামী লীগ সম্পৃক্ত বলে দাবি করেন। এ প্রবন্ধটি পড়ে বাদী মর্মাহত হন এবং বিভিন্নভাবে লেখকের খবরাখবর নিতে থাকেন।

বাদি পরে বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারেন লেখক এই সংবাদটি তার প্রকাশিত জার্নালে বিশদভাবে বর্ণনা করেছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ২০১৭ সালে প্রকাশিত গ্লোবাল জার্নাল অব হিউমেন সোশ্যাল সায়েন্স জার্নালে ‘ধর্মীয় রাজনীতি এবং বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি; একটি চলমান সংকট’ শিরোনামের প্রবন্ধ লিখেন লেখক ও চবি শিক্ষক আনোয়ার হোসেন। সেখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে আপত্তিকর এবং মানহানিকর বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন তিনি। মামলায় এসব তথ্য উল্লেখ করেছেন বাদী।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২০ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ ক্যাম্পাসে নিজের বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক দিয়াজ ইরফানের ঝুলন্ত লাশ। দিয়াজের মা ছেলে হত্যার অভিযোগে হাটহাজারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় অন্যান্য আসামির মধ্যে চবি শিক্ষক আনোয়ার হোসেন অন্যতম।

মামলায় উচ্চ আদালত থেকে নেওয়া জামিন শেষ হওয়ার পর গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করেন শিক্ষক আনোয়ার হোসেন।

এ সময় তিনি জামিন প্রার্থনা করেন। তবে আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পরে উচ্চ আদালত থেকে ফের জামিন নিয়ে চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তিনি চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বের হন।

জেএইচ/এএল/

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad