ছাত্রদল নেতা জাকিরের শরীরে বাহ্যিক আঘাতের চিহ্ন মেলেনি

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫

ছাত্রদল নেতা জাকিরের শরীরে বাহ্যিক আঘাতের চিহ্ন মেলেনি

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১:৪৭ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৮

print
ছাত্রদল নেতা জাকিরের শরীরে বাহ্যিক আঘাতের চিহ্ন মেলেনি

 

রিমান্ড শেষে কারা হেফাজতে মারা যাওয়া ছাত্রদল নেতা জাকির হোসেন মিলনের শরীরে কোন বাহ্যিক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ।

 

মঙ্গলবার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে নিহতের ময়নাতদন্ত শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

সোহেল মাহমুদ বলেন, নিহতের শরীরে বাহ্যিক আঘাতের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তাই সে কিভাবে মারা গেল এই বিষয়ে আমরা এখনো নিশ্চিতভাবে কিছুই বলতে পারছি না।

তিনি আরো বলেন, আমরা নিহতের রক্ত, হার্ট, ফুসফুস, লিভার, কিডনি ও স্টমাক পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠিয়েছি। ভিসেরা রিপোর্ট আসতে এক থেকে দেড় মাস সময় লাগবে। রিপোর্ট পাওয়ার পরই বলা যাবে কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে নিহত জাকিরের ময়নাতদন্ত শুরু করেন সোহেল মাহমুদের নেতৃত্বে গঠিত বোর্ড। ময়নাতদন্ত শেষ হয় সোয়া ১১টার দিকে। বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- ডা. কবীর সোহেল এবং ডা. প্রদীপ বিশ্বাস।

প্রসঙ্গত, সোমবার সকালে কেরানীগঞ্জ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে সেখান থেকে ছাত্রদল নেতা জাকিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাকে মারধর করা হয়েছে। পুলিশের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে।

তবে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের পর সুস্থ অবস্থায় তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তার ওপর কোন নির্যাতন চালানো হয়নি।

গত ৬ মার্চ প্রেসক্লাবে বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ফেরার পথে মিলনকে শাহবাগ থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। তাকে ৩ দিনের রিমান্ডে নিয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে। শনিবার রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পিএসএস/এএস

 
.




আলোচিত সংবাদ