লাবুর নিশানায় ছিল ধর্মান্তরিত খ্রিস্টান: র‍্যাব

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

লাবুর নিশানায় ছিল ধর্মান্তরিত খ্রিস্টান: র‍্যাব

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:৪১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

print
লাবুর নিশানায় ছিল ধর্মান্তরিত খ্রিস্টান: র‍্যাব

ধর্মান্তরিত খ্রিস্টানদের ওপর হামলা করে তাদের হত্যার পরিকল্পনা করেছিল নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির ঝিনাইদহ অঞ্চলের আঞ্চলিক পর্যায়ের নেতা নুরুজ্জামান লাবু।

মঙ্গলবার দুপুরে কাওরান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আনোয়ারুজ্জামান এ তথ্য জানান।

এরআগে সোমবার গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের সোনালী ব্যাংকের মোড় এলাকা থেকে নুরুজ্জামান লাবু এবং নাজমুল ইসলাম শাওনকে গ্রেফতার আটক করে র‍্যাব।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ২টি চাপাতি, জঙ্গিবাদী বই, ৭২৪ ইউএস ডলার এবং অন্যান্য সামগ্রী জব্দ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে কর্নেল আনোয়ারুজ্জামান বলেন, ২০১৫ সালে সাইফ ওরফে রুবেলের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ত হন লাবু। সাইফ তাদের জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ করে ‘বিধর্মীদের’ হত্যা ও আক্রমণ করার অনুপ্রেরণা দিতেন। বিভিন্ন সময়ে তিনি ঝিনাইদহ এলাকায় স্কুল মাঠে ও একটি গ্যারেজে সমমনাদের নিয়ে গোপনে বৈঠক করেছেন।

তিনি বলেন, স্থানীয় জেএমবির পক্ষ থেকে নুরুজ্জামানকে একটি অটোরিকশা কিনে দেয়া হয়। সেই রিকশা চালানোর অজুহাতে নুরুজ্জামান বিভিন্ন এলাকায় রেকি করতেন এবং ইসলাম ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত খ্রিস্টানদের অনুসরণ করতেন।

র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক আরও জানান, সম্প্রতি ইসলাম ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হওয়া এক খ্রিস্টান ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করার জন্য প্রতিনিয়ত অনুসরণ করছিলেন বোমা বানাতে বিশেষভাবে পারদর্শী নুরুজ্জামান।

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারদের জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ত করতেন শাওন
আটক আরেক জঙ্গি নাজমুল ইসলাম শাওন ৪৬তম মেরিন ব্যাচের ইঞ্জিনিয়ার বলে জানান র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক আনোয়ারুজ্জামান।

তিনি বলেন, শাওন ২০১৫ সালে উগ্রবাদী বই পড়ে নিজে থেকেই জঙ্গিবাদে উদ্ধুদ্ধ হন। এরপর তিনি ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন উগ্রবাদী পোস্ট শেয়ার করতেন।

২০১৫ সালের মার্চে ফেসবুকের মাধ্যমে আবু আব্দুল্লাহ নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে তার পরিচয় হয়। আব্দুল্লাহর মাধ্যমেই পরবর্তীতে শাওন জেএমবিতে যোগদান করেন। আব্দুল্লাহর সূত্র ধরে জেএমবির অপর সদস্য সুলায়মান ওরফে আজাহারের সঙ্গে পরিচয় হয় তার।

সুলায়মানের নির্দেশক্রমে শাওন তার পরিচিত মেরিন ইঞ্জিনিয়ারদের মধ্যে উগ্রবাদী মতাদর্শ প্রচারের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে যোগদান করাতে শুরু করেন। তবে এখন পর্যন্ত কতজন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারকে শাওন সম্পৃক্ত করিয়েছে এ বিষয়ে কিছুই জানাতে পারেননি র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক।

তিনি বলেন, শাওনকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। গতরাতে তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের খুব বেশি সময় পাইনি। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

আনোয়ারুজ্জামান বলেন, আটকরা সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অনলাইনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে প্রায় ৪০-৫০ জন সমমনা উগ্রবাদীদের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করেছে। তেজগাঁওয়ে অভিযানের সময় তাদের মধ্যে ৬-৭ জন পালিয়ে যায়। রাজধানীতে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল তারা।

পিএসএস/আইএম

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad