দিল্লির রণক্ষেত্রের নিন্দায় বাংলার চলচ্চিত্র মহল!
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০ | ২২ চৈত্র ১৪২৬

দিল্লির রণক্ষেত্রের নিন্দায় বাংলার চলচ্চিত্র মহল!

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:১৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০

দিল্লির রণক্ষেত্রের নিন্দায় বাংলার চলচ্চিত্র মহল!

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ঘিরে এখনো অশান্তির আগুন জ্বলছে দিল্লিতে। মঙ্গলবার থেকেই পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হতে শুরু করে। বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। এখনো পর্যন্ত প্রাণ গিয়েছে ২৭ জনের। পুলিশি নিরাপত্তায় মোড়া রাজধানী। বিধ্বস্ত উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে জারি হয়েছিলো ‘শ্যুট অ্যান্ড সাইট’ এর নির্দেশ। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দিল্লিবাসীকে শান্তি বজায় রাখার আর্জি জানিয়ে টুইট করেন। পরিস্থিতি সামলাতে ময়দানে নামেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল।

এই উত্তপ্ত পরিস্থিতে মৌনতা ভেঙেছেন বাংলার শিল্পী মহল। একের পর এক টুইটে হিংসা বন্ধ করার বার্তার পাশাপাশি, ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন অভিনেত্রী ও সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান এবং মিমি চক্রবর্তীরা। বুধবার তাদের টুইটার হ্যান্ডেলে সরব হন অনির্বাণ ভট্টাচার্য, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো বাংলার প্রথম সারির শিল্পীরা।

ভারতের ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বসিরহাটের সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান বলেন, ‘দুঃখিত, হৃদয়বিদারক, শোকস্তব্ধ…আমার দেশ জ্বলছে। সবার আগে মনে রাখতে হবে আমরা মানুষ। দয়া করে ভুল খবর, বিভ্রান্তি ও হিংসা ছড়াবেন না।’

যাদবপুরের সংসদ সদস্য মিমি চক্রবর্তী লিখেছেন, ‘আজ ভালো হয়েছে কবি গুরু তুমি বেঁচে নেই …আজ ভালো হয়েছে কবি নজরুল ইসলাম তুমি বেঁচে নেই। কারণ মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু-মুসলমান আর নই, মোরা রাম আর রহিম ভাই ভাই আর নই। যেটা আমরা এখন… সেটা আর যাই হোক মানুষ আর নই …’

টুইট বার্তায় পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় ‘জন গণ মন’ এর একটি স্তবক উদ্ধৃত করে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। অন্যদিকে বিজেপিকে সরাসরি আক্রমণ করেছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। তিনি লিখেছেন, ‘দিল্লীতে কি হচ্ছে, বিজেপি আই টি সেল একটু বলবেন? আপনাদের কাছেই শুনবো, কারণ দেশ তো আপনারাই গড়ছেন। টুকড়ে টুকড়ে খবর শুনে কী করবো বলুন, আপনারাই বেশ করে বুঝিয়ে দিন তো, যাতে আমার এখনো না হওয়া কাল্পনিক সন্তানেরও মাথায় গেঁথে যায়। নিন, বোঝান..আচ্ছা, ট্রাম্প এখন কোথায়?’

পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘না, এখন আর এটা আকস্মিক ঘটনা নয়। বিষয়টা চলছিলোই, এখন কেবল সামনে আসল। ভিডিওটিতে যে দৃশ্য দেখা গিয়েছে (দুঃখজনকভাবে) তা আমারদেরই করুণ, অসহায়তার প্রতিচ্ছবি মাত্র।’ টুইট করেছে পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, অভিনেত্রী শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়।

সংসদ-অভিনেতা দেবের কথায়, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি না দিল্লি জ্বলছে, আমি দেখছি মানবতার আর্তনাদ। এগুলো বন্ধ হওয়া আশু প্রয়োজন, নইলে দেশ হিসাবে আমরা ব্যর্থ হয়ে পড়ব।’ টুইটে গর্জে ওঠেন অভিনেত্রী রুক্মিণী মৈত্র, অভিনেতা আবির চট্টোপাধ্যায়, অঙ্কুশ হাজরা, বিক্রম চট্টোপাধ্যায়।

ইতিমধ্যেই রাজধানীর পরিস্থিতি ঘুরে দেখেছেন দোভাল। বৈঠক করেছেন দিল্লি পুলিশ এবং আধা সামরিক বাহিনীর আধিকারিকদের সাথে। দেখা করেছেন উত্তর-পূর্ব দিল্লির ডেপুটি কমিশনারের সাথে। সেই মতো বুধবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার ক্যাবিনেট বৈঠকে দিল্লির পরিস্থিতি নিয়ে রিপোর্টও জমা দেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।

এসকে/

 

তারায় তারায়: আরও পড়ুন

আরও