মা ও মায়ের আঁচলের কথা মনে পড়লো অমিতাভের
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ | ২৩ চৈত্র ১৪২৬

মা ও মায়ের আঁচলের কথা মনে পড়লো অমিতাভের

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:২৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২০

মা ও মায়ের আঁচলের কথা মনে পড়লো অমিতাভের

৭৭ বছর বয়সেও মা এবং মায়ের আঁচলের কথা ভুলতে পারেননি মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন। গতো ১৩ তারিখ রাতে টুইট বার্তায় এমন কথা বলেন তিনি। বয়স হওয়ার দরুণ বাঁ চোখে এক ধরনের কালো ছোপ পড়ায় তিনি গিয়েছিলেন চিকিৎসকের কাছে। ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলার পর তার মনে হলো, তিনি মিস করছেন তার মাকে আর মায়ের আঁচলকে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এই সময়ের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মায়ের সাথে অমিতাভের সম্পর্কটা কেমন ছিলো তার উদাহরণ তিনি দিয়েছিলেন গত বছর ১২ আগস্ট মায়ের জন্মদিনে এক বার্তায়।

সেই বার্তায় তিনি লিখেছিলেন, ‘যখন আমি ব্যর্থ হয়েছি, তখন তিনি আমার ভিতর আশার আগুন জ্বালিয়েছেন। যখন আমি সফল হয়েছি তখন তার চোখে দেখেছি জল। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত রোজ খোঁজ নিয়েছেন আমি খেয়েছি কি না। বাড়ি থেকে বেরোনোর সময় বলতেন যেন দেরি না হয় ফিরতে। থিয়েটার, সিনেমা আর সঙ্গীতের সাথে আমার পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন তিনিই।’ এমন সম্পর্ক যার মায়ের সঙ্গে, যে কোনো অসুস্থতায় মাকে তো মনে পড়বেই তার।

১৩ তারিখের টুইট বার্তায় বিগ-বি  লিখেছেন, আমার বাঁ দিকের চোখটা করকর করছিল। ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি এ রকম হলে অশুভ কিছু হয়। গেলাম ডাক্তার দেখাতে। জানতে পারলাম চোখের মধ্যে কালো একটা কী ঢুকে বসে আছে। ডাক্তার বললেন, কিছু হয়নি। বয়স হয়েছে তাই চোখের সাদা অংশটা কালো হয়ে গিয়েছে। ছোটবেলায় চোখে কিছু হলে মায়েরা যেমন আঁচল গোল করে ফুঁ দিয়ে গরম করে নিয়ে চোখে লাগাতেন, তেমনই কিছু একটা করুন। সব ঠিক হয়ে যাবে। আমার মা তো আর নেই। তাই নিজেই ইলেকট্রিক বাল্বে রুমাল লাগিয়ে গরম করে চোখে লাগালাম। কোনো উপকার হলো না। আসলে মায়ের আঁচল, মায়ের আঁচলই হয়।’

এই বার্তার সঙ্গে অমিতাভ তার বাঁ চোখের একটি ছবি পোস্ট করেছেন। প্রসঙ্গত, অমিতাভের মা তেজি বচ্চন মারা যান ২০০৭ সালের ডিসেম্বর মাসে।

এসকে/এএসটি

 

তারায় তারায়: আরও পড়ুন

আরও