অজানায় চলে গেলেন ‘পকেট হরকিউলিস’ সুলেমানোগ্লু

ঢাকা, শনিবার, ২০ জানুয়ারি ২০১৮ | ৭ মাঘ ১৪২৪

অজানায় চলে গেলেন ‘পকেট হরকিউলিস’ সুলেমানোগ্লু

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৭

print
অজানায় চলে গেলেন ‘পকেট হরকিউলিস’ সুলেমানোগ্লু

তাকে ডাকা হতো ‘পকেট হারকিউলিস’ বলে। মাত্র ৪ ফুট ১০ ইঞ্চির উচ্চতা নিয়েও ভরোত্তোলনের মতো খেলায় বিশ্ব জয় করেছিলেন। তিন-তিনটি অলিম্পিকে জিতেছিলেন সোনার পদক। তুরস্কের এই কিংবদন্তি ভারোত্তোলক নাইম সুলেমানোগ্লু শনিবার পাড়ি দিয়েছেন অজানায়। ইস্তাম্বুলের একটি হাসপাতালে ৫০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

ভরোত্তোলনের প্রতিযোগিতায় নামার আগে সুলেমানোগ্লু ঘোষণা দিতেন, আমি শুধু গোল্ডই চিনি। আর প্রতিযোগিতা শেষ করে ফিরে বলতেন, আমি সিলভার বা ব্রোঞ্জ কি তা চিনি না। তার দারুণ উজ্জ্বল ক্যারিয়ারও সেই সাক্ষ্যই দেয়। অলিম্পিকে টানা তিনবার সোনা জেতার সঙ্গে সাত সাতটি ওয়ার্ল্ড ও ছয়টি ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন তিনি। এমনই অজেয় মানব হয়ে দাড়িয়েছিলেন যে, তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেই ভয় পেতেন অন্যরা।

১৯৮৮, ১৯৯২ ও ১৯৯৬ এই তিন অলিম্পিকে সোনা জয়ের কীর্তি গড়েন সুলেমানোগলু। ২০০০ সালের সিডনি অলিম্পিকে সোনা জিতে অবসরে যাওয়ার স্বপ্ন দেখলেও সেটা হয়নি। সুলেমানোগ্লু জাতিগতভাবে তুর্কি হলেও জন্ম তার বুলগেরিয়ায়। ক্যারিয়ারে বুলগেরিয়ার সঙ্গে দ্বন্দও ছিল বেশ। কিংবদন্তি এই ভারোত্তোলক লিভারের জটিলতায় ভুগছিলেন। গেল অক্টোবরে তার লিভার প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। তুরস্কের নির্বাচনেও অংশ নিয়েছিলেন সুলেমানোগ্লু। তবে ১৯৯৯ ও ২০০৭ সালে দুই বারই তিনি পরাজিত হন। তবে বিশ্ব ভারোত্তোলনের হল অব ফেমের সদস্য তিনি। আর যে কীর্তি রেখে গেছেন পেছনে তাতে তো অমরত্ব নিশ্চিত হয়ে গেছে অনেক আগেই।

টিএআর/ক্যাট

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad