অলিম্পিক সোনা-রূপা জেতা আমেরিকান মেয়েরাও যৌন নির্যাতনের শিকার!

ঢাকা, শনিবার, ২০ জানুয়ারি ২০১৮ | ৭ মাঘ ১৪২৪

অলিম্পিক সোনা-রূপা জেতা আমেরিকান মেয়েরাও যৌন নির্যাতনের শিকার!

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:১৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০১৭

print
অলিম্পিক সোনা-রূপা জেতা আমেরিকান মেয়েরাও যৌন নির্যাতনের শিকার!

অলিম্পিকে পদক জেতা কোনো নারী অ্যাথলেটকেও যৌন হয়রানি বা নির্যাতনের শিকার হতে হয়! এই আধুনিক বিশ্বে এটাও এক নির্মম সত্য। আর সেটিই ইউরোপ আমেরিকার মিডিয়ায় এই মুহূর্তে ঝড় তুলছে। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্টিকস দলের চিকিৎসক ল্যারি নাসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে যৌন হয়রানির। বেশ কয়েকজন নারী অ্যাথলেট তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনেন। এই তালিকায় সর্বশেষ নাম তারকা জিমন্যাস্ট ম্যাককাইলা মারোনি। তাকে নাকি দীর্ঘকাল যৌন নির্যাতন করেছেন ওই চিকিৎসক।

২১ বছর বয়সী আমেরিকান মারোনি ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিকে ব্যক্তিগত ইভেন্টে রূপা জিতেছিলেন। আর দলীয় ইভেন্টে জিতেছিলেন সোনা। এবার জনসম্মুখে বলেছেন টানা ৭ বছর ধরে নাসারের যৌন হয়রানির শিকার তিনি। মাত্র ১৩ বছর বয়সে টেক্সাসে একটি জাতীয় ট্রেনিং ক্যাম্পে নাসারের হাতে প্রথমবার নির্যাতিত হওয়া মারোনি বলেছেন, 'আমি খেলা ছাড়ার আগে পর্যন্ত এটা থামেনি।'

সাম্প্রতিক সময়ে হলিউড প্রযোজক হার্ভি ওয়েনস্টিনের বিরুদ্ধে অনেক তারকা অভিনেত্রী যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন। এটাই মারোনিকে উদ্বুদ্ধ করেছে নাসারের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে মারোনি পোস্ট করেছেন, 'মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় নারী জিমন্যাস্টিকস দল ও অলম্পিক দলের চিকিৎসক ডা. ল্যারি নাসারের হাতে আমি নির্যাতিত হয়েছি। ব্যাপারটা এমন ছিল যে এই লোকটা যখন যেখানে সুযোগ পেত তখনই চিকিৎসার নামে আমাকে হয়রানি করত। লন্ডনে আমি ও আমার দলের স্বর্ণপদক জেতার আগে এমনটা হয়েছে। আমার ব্যক্তিগত রৌপ্যপদক জেতার আগেও হয়েছে।' টুইটারে মারোনি তার স্বীকারোক্তিতে আরও যেসব ঘটনায় নাসারের হাতে নির্যাতিত হয়েছেন সেগুলোর কথাও লিখেছেন।

ডা. ল্যারি নাসার প্রায় তিন দশক ধরে মার্কিন জিমন্যাস্টিকসের সাথে যুক্ত আছেন। তিনি চারটি অলিম্পিকে মার্কিন দলের সাথে যুক্ত ছিলেন। যৌন হয়রানীর অভিযোগগুলো অস্বীকার করেছেন নাসার। ঘটনার ভয়াবহতায় মার্কিন জিমন্যাস্টিকস সভাপতি ও প্রধান নির্বাহী স্টিভ পেনি দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন। জিমন্যাস্টিকস কর্তৃপক্ষ অ্যাথলেটদের কাছে দুঃখপ্রকাশ করেছেন, 'ল্যারি নাসার যা করেছে তাতে আমরা ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত। অ্যাথলেটদের ক্যারিয়ারের সময়কালে এই ক্ষতির জন্য আমরা দুঃখিত।'

বর্তমানে ল্যারি নাসার মিশিগানে একটি কারাগারে আছেন। একাধিক যৌন নির্যাতনের অভিযোগে তাকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

এসএম/ক্যাট

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad