এসএ গেমসের জমকালো উদ্বোধনীতে পতাকা বিতর্ক
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল ২০২০ | ১৯ চৈত্র ১৪২৬

এসএ গেমসের জমকালো উদ্বোধনীতে পতাকা বিতর্ক

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

এসএ গেমসের জমকালো উদ্বোধনীতে পতাকা বিতর্ক

রোববার বিকেলে নেপালের দশরথ স্টেডিয়ামে জমকালো আয়োজনে পর্দা উঠল ১৩তম এসএ গেমসের। প্রায় দেড় হাজার অ্যাথলেট ও শিল্পী নাচে-গানে ও লেজার শোতে তুলে ধরেছেন নেপালের কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য।

তৃতীয়বারের মতো এসএ গেমস আয়োজন করছে নেপাল। এবারের আয়োজনের উদ্বোধন করেছেন দেশটির রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারি।

১০ দিনব্যাপী এই আয়োজনে বাংলাদেশসহ অংশ নিচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার ৭টি দেশ। অংশগ্রহণকারী সাত দেশের ক্রীড়াবিদদের মাঠ প্রদক্ষিণ, মশাল প্রজ্বলন, খেলোয়াড়, কর্মকর্তাদের মার্চ পাস্টে অংশ নিয়ে মুখরিত করেছে উদ্বোধনী আয়োজন। উপমহাদেশের এই ক্রীড়াযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হবে কাঠমান্ডু, পোখারা এবং জানাকপুরে।

এবার প্রতিযোগিতায় ২৬টি ডিসিপ্লিনে ২ হাজার ৭১৫ জন ক্রীড়াবিদ অংশ নেবেন। কর্মকর্তা, কোচ, স্টাফ মিলিয়ে এবার অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা প্রায় ৫ হাজার।

বর্ণাঢ্য এই আয়োজনেও অব্যবস্থাপনা এড়াতে পারেনি নেপাল। জড়িয়েছে পতাকা বিতর্কে। মার্চ পাস্টে স্বাগতিকরা বাদে অন্য দেশের ক্রীড়াবিদরা বড় জাতীয় পতাকা ওড়াতে পারেনি।

সাধারণত এধরনের ক্রীড়ার আসরগুলোতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মার্চ পাস্টে প্রতিযোগিতার অংশ নিতে যাওয়া যে কোনো একজনকে দেওয়া হয় নিজ দেশের পতাকা বহনের দায়িত্ব। কিন্তু গতকাল নেপাল ছাড়া আরো কোন দেশের প্রতিনিধির হাতে ছিল না নিজ দেশের বড় জাতীয় পতাকা।

যার ফলে ক্রীড়াবিদদের ছোট্ট কাঠিতে বাঁধা পতাকা হাতে মাঠ প্রদক্ষিণ করতে হয়েছে। বাংলাদেশের পতাকা বহনের মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল মাহফুজা খাতুন শীলাকে। কিন্তু ২০১৬ শিলং-গৌহাটি গেমসে জোড়া স্বর্ণজয়ী সাঁতারুকেও ছোট কাঠিতে বাঁধা পতাকাই বহন করতে হয়েছে।

পিএ

 

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও