মিয়ানমারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আরসা’র

ঢাকা, বুধবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৮ | ১০ মাঘ ১৪২৪

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আরসা’র

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০৭, ২০১৮

print
মিয়ানমারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আরসা’র

মিয়ানমার সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দ্য আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। রোববার টুইটারে এ ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটি।

শুক্রবার রাখাইনে একটি সামরিক ট্রাকের ওপর চালানো হামলার দায় স্বীকার করে এ ঘোষণা দেয় আরসা। খবর: বিবিসি।

এমন সময় আরসা হামলার কথিত দায় স্বীকার এবং লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে, যখন মিনমারের সেনা অভিযানে বাস্তুচ্যুত সাড়ে ছয় লাখ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

রোববার টুইটারে দেয়া বিবৃতিতে আরসা নেতা আতা উল্লাহ বলেন, ‘রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর আত্মরক্ষা ও রোহিঙ্গা সম্প্রদায়কে রক্ষা করার জন্য মিয়ানমারের সরকারের মদদপুষ্ট সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।’

একই সঙ্গে বিবৃতিতে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মানুষের ‘মানবিক সহায়তা ও রাজনৈতিক ভবিষ্যতের’ জন্য আলোচনা শুরুর আহ্বান জানানো হয়।

মিয়ানমার সরকার দাবি করে, রাখাইনে শুক্রবার ২০ জন ‘চরমপন্থী বাঙালি সন্ত্রাসী’ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে একটি সাঁজোয়া যানের ওপর হামলা চালায়। হামলায় তিন ব্যক্তি আহত হন।

আরসা ‘বাঙালি সন্ত্রাসবাদী’ সংগঠন বলে দাবি করে আসছে মিয়ানমার। তবে আরসা বলছে, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর রাজনৈতিক অধিকার আদায়ের জন্য সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তারা।

গত বছরের আগস্টে আরসা’র চালানো কথিত হামলার পর রাখাইনে গণহত্যা চালায় মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ মিলিশিয়ারা। প্রাণভয়ে এখন পর্যন্ত সাড়ে ৬ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এসব রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সমঝোতা স্মারক সই এবং যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করে। আগামী ২২ জানুয়ারি থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর কথা রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, হামলা চালানোর কথা আরসা স্বীকার করায় এখন মিয়ানমারের সরকার ফের কঠোর অবস্থানে চলে যেতে পারে। এতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এবং রাখাইনে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থার কার্যক্রম বরাবরের মতো ব্যহত হবে।

এমএসআই

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad