থাইল্যান্ডের বালকদের উদ্ধারে 'মিনি সাবমেরিন' পাঠাচ্ছেন এলোন মাস্ক

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫

থাইল্যান্ডের বালকদের উদ্ধারে 'মিনি সাবমেরিন' পাঠাচ্ছেন এলোন মাস্ক

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:৩৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৯, ২০১৮

print
থাইল্যান্ডের বালকদের উদ্ধারে 'মিনি সাবমেরিন' পাঠাচ্ছেন এলোন মাস্ক

থাইল্যান্ডে গুহার ভেতর পানি ও কাদাতে আটকে পড়া বালকদের উদ্ধারে মিনি সাবমেরিন পাঠানোর প্রস্তাব করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি উদ্যোক্তা এলোন মাস্ক। সোমবারেই এ ক্ষুদে জলযান থাইল্যান্ডে পাঠানো হতে পারে বলে জানান তিনি। এনডিটিভির সংবাদ।  

আটকে পড়া বালকদের উদ্ধারে বড় আকৃতির এয়ার টিউব গুহার ভেতরে ঢুকিয়ে দেয়া এবং বালকদের অবস্থান পর্যন্ত পৌঁছার জন্য গর্ত খনন করার কাজের জন্য তার প্রতিষ্ঠানের রাডার ব্যবহারের পরামর্শ দেয়ার পর তিনি এবার মিনি সাবমেরিন পাঠানোর প্রস্তাব দেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।  

টুইটারে এ প্রযুক্তিবিদকে ২২ মিলিয়ন লোক অনুসরণ করে। সেখানে তিনি বলেন, গুহার পথটি অনেক ছোট। সেখান দিয়ে বালকদের কাছে তরল অক্সিজেন পাঠানোর জন্য মিনি সাবমেরিন ব্যবহার করা যায়।

তিনি জানান, এ ডুবোযান অনেক ছোট হলেও দুইজন চালকের চালিয়ে নেয়া এ যান গর্তের ছোট ফাঁক দিয়ে চলাচল করতে অনেক কার্যকর।

তার প্রস্তাবে সাই দিয়ে লস এঞ্জেলসের এক সুইমিংপুলে মিনি সাবমেরিন দিয়ে চালানো এক পরীক্ষামূলক উদ্ধারকার্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। ১০ ঘণ্টার মধ্যে রবিবার পর্যন্ত এ ভিডিও ৩১ লাখ মানুষ এটি দেখেছেন।

সেখানে অনেক মানুষ মাস্কের এ প্রস্তাবকে স্বাগত জানান। অনেকে প্রযুক্তিবিদ ও প্রকৌশলী তার ভাবনার প্রশংসা করেন। সোমবারেই এই মিনি সাবমেরিন থাইল্যান্ডে পাঠানো হবে বলে জানান মাস্ক।   

গত সপ্তাহে মাস্ক জানান, বালকদের উদ্ধারে তার বেসরকারি মহাকাশ প্রযুক্তি উদ্ভাবন প্রতিষ্ঠান স্পেসএসক্স এবং প্রকৌশলী বোরিং কোম্পানির টিম পাঠাচ্ছেন তিনি। মহাকাশ নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা কাজে লাগাবেন তারা।

উল্লেখ্য, ২৩ জুন ১২ জন ক্ষুদে ফুটবলারদের নিয়ে তাদের কোচ এক্কাপল চান্তাওয়াং গুহা দেখতে যান। কিন্তু গুহার ভেতরে ঢুকলে হঠাৎ বৃষ্টি আসলে তারা গুহার মুখ থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার ভেতরে চলে যান এবং সেখানেই আটকা পড়ে আছেন। গুহা থেকে সোমবার নাগাদ আটজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো চার কিশোর ফুটবলার ও কোচ আটকা পড়ে আছেন। পুরো বিশ্বের মানুষ এখন তাকিয়ে আছে থাইল্যান্ডের এ ঘটনার দিকে। গত দুই সপ্তাহ ধরে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমেরও শিরোনাম হচ্ছে আটকে পড়া এসব বালক।

আরজি/

 
.



আলোচিত সংবাদ