জিনপিংকে ক্ষমতায় রাখতে চীনের সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫

জিনপিংকে ক্ষমতায় রাখতে চীনের সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:৫০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৮

print
জিনপিংকে ক্ষমতায় রাখতে চীনের সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব

চীনের ক্ষমতাসীন কম্যুনিস্ট পার্টি সংবিধান থেকে প্রেসিডেন্টের মেয়াদ বিষয়ক নিয়মটি সরিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করেছে। বর্তমানে সংবিধান অনুযায়ী চীনে দুইবার পাঁচ বছর মেয়াদে মোট দশ বছরের বেশি কেউ প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন না। কিন্তু নিয়মটি পরিবর্তন করা হলে জিনপিং ২০২৩ সালের পরও চীনের প্রেসিডেন্ট হয়ে থাকবেন।

বেশ কিছুদিন ধরেই জল্পনা-কল্পনা চলছিল যে জিনপিং প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার দায়িত্ব পালনের মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা করবেন।

গত বছর তিনি তার কম্যুনিস্ট পার্টির কংগ্রেসে মাও সে তুংয়ের পর সবচেয়ে ক্ষমতাশালী নেতা হিসেবে নিজের অবস্থান প্রতিষ্ঠিত করেন।

তার আদর্শকে দলটির সংবিধানেও গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করা হয়েছে। একই সাথে প্রচলিত নিয়ম ভেঙ্গে তার কোনও উত্তরসূরি ঘোষণা করা হয়নি।

রোববার চীনের সংবিধানে পরিবর্তন আনার বিষয়টি সরকারী সংবাদ সংস্থা জিংহুয়াতে ঘোষণা করা হয়।

জিংহুয়ার খবরে বলা হয়, 'প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট 'পর পর দুইবারের বেশি ক্ষমতায় থাকতে পারবে না' এই নিয়মটি দেশের সংবিধান থেকে সরিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করেছে চীনের কম্যুনিস্ট পার্টির সেন্ট্রাল কমিটি।'

রিপোর্টে এর বেশি আর কোনও তথ্য যোগ করা হয়নি, কিন্তু আশা করা হচ্ছে সম্পূর্ণ প্রস্তাবটি শীঘ্রই প্রকাশ হবে।

সোমবার বেইজিংয়ে দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যদের একটি বৈঠকে বসার কথা। তার ঠিক আগে আগে এই ঘোষণা দেয়া হল।

মার্চের ৫ তারিখে চীনের ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস বা সংসদে আইনপ্রণেতাদের সামনে প্রস্তাবটি পেশ করা হবে।

জিনপিং ২০১৩ সাল থেকে চীনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এবং ২০১৩ সালে তার পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা।

১৯৯০-এর দশকে চীনের কম্যুনিস্ট পার্টির সর্বোচ্চ নেতা দেং জিয়াওপিং প্রেসিডেন্টের মেয়াদ দশ বছরের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেন। মাও সে তুংয়ের আমলের মতো অরাজকতার পুনরাবৃত্তি এড়ানোর উপায় হিসেবে তিনি এই সিদ্ধান্ত নেন।

জিনপিংয়ের আগের দুই প্রেসিডেন্ট এই আইন মেনে চললেও, ২০১২ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই জিনপিং তার নিজস্ব নিয়মে চলার প্রবণতা দেখান।

এমআর/এএসটি

 
.




আলোচিত সংবাদ