দু’আ কবুলের সময় ও পরিস্থিতি

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫

দু’আ কবুলের সময় ও পরিস্থিতি

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:৩৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮

print
দু’আ কবুলের সময় ও পরিস্থিতি

আল্লাহ তা’আলার কাছে প্রার্থনার মাধ্যমই হলো দু’আ। এমনকি দু’আ সমস্ত ইবাদতের মূল। বিশ্বাসী বান্দা দু’আর মাধ্যমে তার আকুতি আল্লাহর কাছে পেশ করে।

আল্লাহর কাছে দু’আর মাধ্যমে কিছু চাইলে আল্লাহ খুশি হন। আর যে দু’আ করে না, আল্লাহ তার উপর রাগান্বিত হন। বান্দার দু’আ কবুলের মাধ্যমে আল্লাহ তার প্রত্যাশিত চাওয়া পূরণ করেন বা তার থেকে উত্তম কিছু দান করেন। 

দু’আ কবুলের পরিস্থিতি

মজলুম বা অত্যাচারিত ব্যক্তির দু’আ

হজ্জ্ব বা উমরাহকারী ব্যক্তির দু’আ

জিহাদে অংশগ্রহণকারী ব্যক্তির দু’আ

বিপন্ন ব্যক্তি ও রোযাদার ব্যক্তির দু’আ

কুরআন তেলওয়াতরত ব্যক্তির দু’আ

কারো জন্য তার অনুপস্থিতিতে দু’আ করলে সেই দু’আ। কেননা কোনো ব্যক্তির জন্য তার অনুপস্থিতিতে দু’আ করা হলে ফেরেশতারা সেই দোয়ায় অংশগ্রহণ করেন।

সর্বদা আল্লাহকে স্মরণকারী ব্যক্তির দু’আ

ন্যায়বিচারক শাসকের দু’আ 

দু’আ কবুলের সময়

রাতের শেষ এক-তৃতীয়াংশে

আযান ও ইকামাতের মাঝখানে

নামাযের ভেতর, কেননা বান্দা তখন আল্লাহর একান্ত নিকটে থাকে

নামাযের মাঝে সিজদায়

নামায শেষ হওয়ার পরে

জুম’আর দিনের একটি বিশেষ সময়ে। (সময়টি নিয়ে অবশ্য ফকীহ উলামাদের মধ্যে মতভিন্নতা আছে।  তন্মধ্যে তুলনামুলক বিশুদ্ধতম মতানুযায়ী মাগরিবের পূর্বের সময়টি)

রাতে ঘুম থেকে জেগে অজু করার পর

যমযমের পানি পানের পর

রমযান মাসে

লাইলাতুল কদরে

অসুস্থ ব্যক্তিকে দেখতে গিয়ে

মোরগ ডাকার সময় (অর্থাৎ  শেষ রাতে যখন ফজরের সময় হলে মোরগ ডাকে)

উপরের দু’আ কবুলের বিভিন্ন পরিস্থিতি ও সময়গুলো রাসুলুল্লাহ (সা.) এর একাধিক হাদিস থেকে সংগৃহীত।

মহান আল্লাহ আমাদেরকে তাঁর কাছে বেশী বেশী দু’আ করার তৌফিক দান করুন এবং আমাদের দু’আগুলোকে তিনি কবুল করুন।

এফএস/এএসটি

 
.




আলোচিত সংবাদ