রবি মৌসুমের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ব্যস্ত কৃষকরা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

রবি মৌসুমের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ব্যস্ত কৃষকরা

ভোলা প্রতিনিধি ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৯, ২০১৭

print
রবি মৌসুমের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ব্যস্ত কৃষকরা

আগাম বর্ষা ও অস্বাভাবিক জোয়ারের কারণে ভোলার কৃষকরা রবি মৌসুমে ফসল ঘরে তুলতে পারেনি। বিশেষ করে ডাল জাতীয় শস্য মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় কৃষকরা লোকসানের মুখে পড়ে। লোকসান পুষিয়ে উঠার জন্য তারা এবার ব্যাপকহারে আউশ ধানের আবাদ করেছে। এছাড়া বোরো ধানেও তারা পেয়েছে বাম্পার ফলন। বেশি দামে আউশ ধান সংগ্রহের সরকারি ঘোষণা এবং বিনামূল্যে সার ও বীজ পাওয়ায় কৃষকরা ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশায় দিন-রাত ফসল ফলানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

.

সরেজমিনে কৃষকদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, এবারের রবি মৌসুমটা ভোলার কৃষকদের জন্য ভালো ছিল না। আগাম বৃষ্টি আর অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে তলিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে অধিকাংশ ফসল। যে কারণে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ফসল পায়নি কৃষক। যা পেয়েছে তাতে খরচের টাকাও ওঠেনি। সংসারের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয়নি কৃষকদের। এমনকি শোধ হয়নি ঋণের টাকা। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা সরকারিভাবে পাননি কোনো সাহায্য।

কথা হয় ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশার কৃষক মো. কামাল, জসিম ও সাত্তারের সাথে। তারা জানান, রবি মৌসুমে তারা প্রত্যেকেই লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বোর ধানের দাম ভালো পেয়েছেন। তাই আউশ ধানের ফলন ভালো হলে রবি মৌসুমের ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারবেন।

কৃষি বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, এবার ভোলার কৃষকরা ৪৫ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে বোরোর আবাদ করে ২ লাখ ৮০ হাজার মেট্রিক টন ধান পেয়েছে। যার পরিমাণ গত বছরের চেয়ে ৯২ হাজার মেট্রিক টন বেশি। কিন্তু তাতেও কৃষকরা রবি মৌসুমের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেনি। তাই ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে আবাদকৃত আউশ ক্ষেতের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকেরা।

ভোলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক প্রশান্ত কুমার সাহা জানান, উৎপাদন ব্যয় বেশি হওয়ার কারণে ভোলার কৃষকরা সাধারণত আউশ ধানের আবাদ বেশি একটা করে না। এবার প্রণোদনা হিসেবে বিনামূল্যে সার ও বীজ পাওয়াসহ ৯ শত ৬০টাকা মন দরে ধান কেনার সরকারি ঘোষণা পেয়ে এ বছর ভোলায় ৮৬ হাজার ৮ শত হেক্টর জমিতে আউশ ধান আবাদ করেছে কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এ বছর ১ লাখ ৩১ হাজার ৭ শত ৮৮ মেট্রিক টন আউশ ধান পাওয়া যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এএম/জেআই

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad