লিচু বাগানে সারি সারি মৌমাছির বাক্স

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

লিচু বাগানে সারি সারি মৌমাছির বাক্স

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ১:১৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৭

print
লিচু বাগানে সারি সারি মৌমাছির বাক্স

বর্তমানে লিচুর বাগানগুলো মুকুলে ছেয়ে গেছে। ঠাকুরগাঁও জেলায় গড়ে উঠেছে বেশকিছু লিচু বাগান। ঠাকুরগাঁও সদর, পীরগঞ্জ ও রাণীশংকৈল উপজেলায় গড়ে উঠেছে এসব লিচুর বাগান। মৌমাছির মাধ্যমে মুকুলে মুকুলে পরাগায়ন ঘটায় লিচু গাছ মালিকরা বাম্পার ফলনের আশা করছেন। অল্প পরিচর্যায় ও কম খরচে প্রতি বছর মোটা অঙ্কের অর্থ আয় হয় বলে অনেকে লিচুর বাগান করেছেন। চলতি বছর ঠাকুরগাঁওয়ের ৫ উপজেলায় ৯৮০ হেক্টর জমিতে প্রায় ৩ হাজার বাগানে লিচু চাষ হয়েছে।

.

ঠাকুরগাঁও-রুহিয়া সড়কের পাশে উত্তর ঠাকুরগাঁও এলাকায় অবস্থিত লিচু বাগানগুলোতেও কয়েকজন মৌ খামারি বাগানে ছোটবড় বিভিন্ন আকৃতির মৌমাছির বাক্স বসিয়ে বৈজ্ঞানিক উপায়ে মৌ চাষ করে মধু সংগ্রহ করছেন।

আব্দুল ওহাব, আব্দুর রশিদসহ কয়েকজন খামারি জানান, বাগান মালিকদের আহ্বানে তারা প্রায় ২০-২৫টি খামারি দল ঠাকুরগাঁওয়ের বিভিন্ন বাগানে এসেছেন। ১০-১৫ দিন অন্তর অন্তর প্রতিটি বাক্স থেকে চাষিরা ৬-৭ মণ মধু সংগ্রহ করেন। একদিকে মধু সংগ্রহ করেন, অপরদিকে গ্রাফটিংয়ের মাধ্যমে নতুন রাণী উৎপাদন করছেন। এ বছর আবহাওয়ার বিরূপ প্রভাবের কারণে মধু সংগ্রহ অনেকটা কম।

ঠাকুরগাঁও শহরের গোবিন্দনগর মহল্লায় নুরে আলমের লিচু বাগানটি এলাকার প্রায় বড় বাগান। এখানে শতাধিক লিচু গাছ থাকায় কয়েকজন মৌ চাষি সেই বাগানে ছোট বড় বিভিন্ন আকৃতির মৌমাছির বাক্স বসিয়ে বৈজ্ঞানিক উপায়ে মৌ চাষ করে মধু সংগ্রহ করছেন।

বাগান মালিক আব্দুল কাইউম ও নূর ইসলাম জানান, যে বছর বাগানে  মৌমাছির চাষ করা হয় সে গাছে বেশ ভালো মুকুল আসে। ভালো ফল আসে এবং লিচুর আবাদ ভালো হয়। মৌ চাষের ফলে কীটনাশকের ব্যবহার তেমন একটা হয় না। ফুলে ফুলে মৌমাছির মধু সংগ্রহের পরাগায়ণ ঘটায় লিচুর ফলন ও আকার ভালো হয়। এটা কৃষকদের পক্ষেও লাভজনক।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক খন্দকার মাওদুদুল ইসলাম  জানান, চলতি বছর ঠাকুরগাঁও জেলায় ৯৮০ হেক্টর জমিতে লিচুর আবাদ হয়েছে। প্রতি বছর গড়ে ৩ হাজার মেট্রিক টন লিচু এ জেলায় উৎপাদন হয়। চলতি বছর জেলার প্রায় সব বাগানেই ভ্রাম্যমাণ মৌ চাষিদের মধু চাষ করতে দেখা যায়। ইতোমধ্যে প্রায় ২০০ কেজি মধু সংগ্রহ করা হয়েছে। লিচু গাছ থেকে মৌ মাছি মধু আহরণের ফলে গাছে গাছে বেশি করে পরাগায়ণ হয়। এতে কৃষক ও মৌ খামারি উভয়েই লাভবান হচ্ছেন।

যে লিচু গাছে মৌমাছির আগমন বেশি হয় সে গাছের মুকুলে পরাগায়ন ভালো হয়। ফলে ওই গাছে বা বাগানে লিচুর যেমন বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা থাকে, তেমনি মৌ চাষিরা বেশি মধু সংগ্রহ করে বাণিজ্যিকভাবে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারে।

বিআইবি/বিএইচ/

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad